শনিবার, ৭ আগস্ট, ২০২১ ০০:০০ টা

সিলেটে ৪৫০ শয্যার আইসোলেশন সেন্টারের জটিলতা কাটল

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিলেট

অবশেষে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে কভিড চিকিৎসার জন্য আরও ৪৫০ শয্যার একটি আইসোলেশন সেন্টার স্থাপনের জটিলতার অবসান হলো। হাসপাতালের আউটডোর বিল্ডিংয়ে সেন্ট্রাল অক্সিজেন লাইন সংযোজন প্রকল্প স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে অনুমোদন লাভ করায় জটিলতার অবসান ঘটল। সব প্রস্তুতি থাকা সত্ত্বেও এতদিন শুধু সেন্ট্রাল অক্সিজেন লাইনের অভাবে এই সেন্টারটি চালু করা সম্ভব হচ্ছিল না। পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেনের একটি ডিও লেটারের প্রেক্ষিতে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় প্রকল্পটি অনুমোদন দেয়। এতে খরচ হবে প্রায় চার কোটি টাকা। প্রকল্প অনুমোদনের বিষয়টি গতকাল নিশ্চিত করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেন। জানা যায়, সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নতুন বহির্বিভাগের ১০তলা ভবনের ৪র্থ ও ৫ম তলা আইসোলেশন সেন্টারের জন্য প্রস্তুত করা হয়। কিন্তু সেন্ট্রাল অক্সিজেন লাইন না থাকায় সাড়ে চারশ’ শয্যার আইসোলেশন সেন্টার চালু করা সম্ভব হচ্ছিল না। ওসমানী হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ও সিটি করপোরেশন কয়েক দফা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে আবেদন করলেও সেন্ট্রাল অক্সিজেন লাইন স্থাপন প্রকল্পটি পাস হয়নি। এই অবস্থায় গত বুধবার পররাষ্ট্রমন্ত্রী স্বাস্থ্যমন্ত্রী বরাবরে একটি ডিও লেটার প্রেরণ করেন। ওই ডিও লেটারে তিনি সিলেটে কভিড পরিস্থিতি তুলে ধরে দ্রুত প্রকল্পটি অনুমোদন দেওয়ার অনুরোধ জানান। ওই ডিও লেটার পাঠানোর পরদিনই স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে প্রকল্পটি অনুমোদন দেওয়া হয়। এ প্রসঙ্গে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেককে ডিও দেওয়ার পর তিনি দ্রুত উদ্যোগ নিয়েছেন। এখন দ্রুততার সঙ্গে কাজ শেষ করে সিলেটের মানুষের জন্য নতুন এই আইসোলেশন সেন্টারটি চালু করা প্রয়োজন। সাড়ে চারশ’ শয্যার আইসোলেশন সেন্টারটি চালু হলে সিলেটের মানুষ অনেক উপকৃত হবে।