সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ টা

অগ্রগতি নষ্ট করতে চাইলে দাঁতভাঙা জবাব

নিজস্ব প্রতিবেদক

অগ্রগতি নষ্ট করতে চাইলে দাঁতভাঙা জবাব

বিএনপির প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সহিংসতা আর জ্বালাও-পোড়াও করে দেশের উন্নয়ন-অগ্রগতি নষ্ট করতে চাইলে দাঁতভাঙা জবাব দেওয়া হবে। গতকাল রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মদিন উপলক্ষে ‘মানবতার আলোকবর্তিকা দেশরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনা’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

দলের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক উপ-কমিটি এ আলোচনা সভার আয়োজন করে।

বিএনপি নেতাদের উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের বলেন, আজকে সিরিজ বৈঠক করছেন, সিরিজ বৈঠক তো নয়, ষড়যন্ত্র বৈঠক। আবারও জ্বালাও-পোড়াওয়ের ইচ্ছা আপনাদের আছে বোধহয়। সেই দুরভিসন্ধি নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছেন। তিনি বলেন, একটি কথা মনে রাখবেন, এবার যদি কোনো সহিংসতার আশ্রয় নেন, দেশে কোনো বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করেন; শেখ হাসিনার অর্জন, অনন্য সাফল্য নষ্ট করতে চান, তাহলে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে তার দাঁতভাঙা জবাব দিতে আমরা প্রস্তুত।

প্রধানমন্ত্রীর জাতিসংঘ সফরে কোনো অর্জন নেই বলে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বক্তব্যের জবাবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, অবাক লাগে। মির্জা ফখরুল বলেন, এই সফরে কোনো অর্জন নেই। ফখরুল সাহেব দুনিয়ার কোনো খবর রাখেন না। জাতিসংঘের অধিবেশনে প্রত্যেকটি ফোরামের বক্তব্য, মূল অধিবেশনে শেখ হাসিনার বক্তব্য সারা বিশ্বে প্রশংসিত হয়েছে। বাংলাদেশের সুনাম মর্যাদা শেখ হাসিনা নতুন মাত্রায় উন্নীত করেছেন। তিনি বলেন, জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে তিনি যে বক্তব্য দিয়েছেন, টিকা বৈষম্য নিয়ে কথা বলেছেন, সারা দুনিয়া আজকে মুগ্ধ। তিনি বলেছেন, সবার জন্য টিকায় সমান সুযোগ থাকতে হবে। এটা কি আপনি শোনেননি। নিউইয়র্ক টাইমস পত্রিকাটি পড়েননি। এই পত্রিকার মতো আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন ও বহুল প্রচারিত পত্রিকাগুলোও এমন মন্তব্য করেছে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, নিউইয়র্ক টাইমস আমেরিকার প্রেসিডেন্টকে বলেছে, দারিদ্র্যের ব্যাপারে কী করবেন, বাংলাদেশের দিকে তাকান। শেখ হাসিনার দিকে তাকান। দারিদ্র্য বিমোচন কীভাবে করতে হয় শেখ হাসিনা দেখিয়ে দিয়েছেন। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুকন্যা সাহস করে জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রতিক্রিয়া নিয়ে কথা বলতে পেরেছেন। ফখরুল সাহেব বলেছেন, রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে সরকার কিছু বলেনি। রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে শেখ হাসিনা বলেছেন, আমাদের নিজেদের সমস্যা-সংকট আছে। এর ভিতরেও এতদিন ধরে আমরা ১১ লাখ রোহিঙ্গা মিয়ানমারের নাগরিকদের আশ্রয়-খাবার দিচ্ছি। এই সমস্যা সমাধানে বিশ্বের বড় দেশগুলো আমাদের জন্য কিছুই করেনি। সাহস করে বঙ্গবন্ধুকন্যা এই সত্য উত্থাপন করেছেন।

আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরীর সভাপতিত্বে এবং ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দীর পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন, আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আবদুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক, শ্রম সম্পাদক হাবিবুর রহমান সিরাজ প্রমুখ। অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপচার্য ড. মীজানুর রহমান।

অনুষ্ঠানে দুস্থদের কর্মসংস্থানের লক্ষ্যে ঢাকায় ২৩ বঙ্গবন্ধু এভিনিউর দলীয় কার্যালয়ে রিকশা ও ভ্যান গাড়ি তুলে দেওয়া হয়। এ ছাড়াও প্রতিনিধির মাধ্যমে গাজীপুরের কালিগঞ্জ, জামালপুরের ইসলামপুর, দিনাজপুরের কাহারোল, সাতক্ষীরার আশাশুনি এবং বাগেরহাটের শরণখোলাতে রিকশা-ভ্যান বিতরণ করা হয়।

সর্বশেষ খবর