শিরোনাম
মঙ্গলবার, ২০ জুন, ২০২৩ ০০:০০ টা

রাতভর আওয়ামী লীগ নেতাকে আটকে ছাত্রলীগের নাটক, সকালে মুক্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী

রাজশাহীতে নির্বাচন কর্মকর্তার বাসায় দেখা করতে গিয়ে আটক আওয়ামী লীগ নেতা মীর ইশতিয়াক আহমেদ লিমনকে ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ। সোমবার দুপুর পৌনে ১২টার দিকে তার বাবা রাজশাহী জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর ইকবালের জিম্মায় তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। মীর ইশতিয়াক আহমেদ লিমন রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক।

রবিবার রাত ৯টার দিকে তিনি সিটি নির্বাচনের ৯, ১১ ও ১২ নম্বর ওয়ার্ডের সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা আবুল হোসেনের বাসায় এসেছিলেন। এ সময় বাইরে থেকে মহানগর ও রাজশাহী কলেজ ছাত্রলীগের একাংশের নেতা-কর্মীরা তাকে অবরুদ্ধ করেন। লিমন ও নির্বাচন কর্মকর্তার নামে নানা রকম স্লোগান দিতে থাকেন। একপর্যায়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে। পুলিশের উপস্থিতিতে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা আওয়ামী লীগ নেতাকে গালাগাল করেন। এ সময় লিমনের বাবা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর ইকবাল ঘটনাস্থলে আসলে তাকে ধাক্কা দেওয়া হয়। এ নিয়ে উত্তপ্ত পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। ছাত্রলীগ নেতাদের অভিযোগ, নির্বাচনে একজন কাউন্সিলরের পক্ষে নির্বাচন প্রভাবিত করতে লিমন নির্বাচন কর্মকর্তার বাড়িতে টাকা নিয়ে ঢুকেছেন। রাত ১২টার দিকে বিপুল সংখ্যক পুলিশ ওই বাসা থেকে মীর ইশতিয়াক আহমেদ লিমনকে উদ্ধার করে বোয়ালিয়া থানায় নিয়ে যান। এর আগে বাড়িটিতে তল্লাশি চালানো হয়। রাতভর লিমন থানাতেই ছিলেন। রাতে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আবুল হোসেন সাংবাদিকদের কাছে দাবি করেন, মীর ইশতিয়াক আহমেদ লিমন শুধু তার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে এসেছিলেন। তিনি জানতে চেয়েছেন নির্বাচন নিরপেক্ষ হবে কি না।

তিনি তাকে জানিয়ে দিয়েছেন নির্বাচন নিরপেক্ষ হবে। এ ছাড়া তার সঙ্গে কোনো কথা হয়নি। তিনিই পুলিশকে খবর দিয়েছেন। স্বচ্ছতা যাচাইয়ে বাড়িও তল্লাশি করিয়েছেন। বোয়ালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সোহরাওয়ার্দী হোসেন বলেন, যে অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে মীর ইশতিয়াক আহমেদ লিমনকে আটক করা হয়েছিল, তার কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি। এ জন্য তার বাবা রাজশাহী জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর ইকবালের জিম্মায় দুপুর পৌনে ১২টার দিকে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর