শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩১ জানুয়ারি, ২০২০ ২৩:৫৩

নাটোরে সড়ক সংস্কারে ধীরগতি, ভোগান্তি

নাটোর প্রতিনিধি

নাটোরে সড়ক সংস্কারে ধীরগতি, ভোগান্তি

সংস্কার কাজের ধীরগতির কারণে চরম ভোগান্তিতে পড়েছে নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার বনপাড়া পৌরবাসীসহ নাটোর-পাবনা মহাসড়কে চলাচলকারী লাখো মানুষ। বনপাড়া পৌরবাজার থাকে ধুলাময় আর জ্যামে পড়ে বাস-ট্রাকের হয় দীর্ঘ সময় অপচয়। নাটোরের বনপাড়া পৌরসভার মূল ফটকের সামনে ৫০০ মিটার মহাসড়কের এই হাল। জানা যায়, গত বছর নভেম্বরে পাবনা-নাটোর মহাসড়কের নাটোর অংশ সংস্কারের জন্য খুলনার মোজাহার এন্টারপ্রাইজ নামে একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে কার্যাদেশ দেওয়া হয়েছে। এরা কিছু এলাকায় কাজ শুরু করেছে। কিন্তু বনপাড়া পৌর শহরের গুরুত্বপূর্ণ এই অংশটুকুতে এখনো কাজ শুরু করেনি। সরেজমিন পরিদর্শনে গিয়ে জানা যায়, বনপাড়া পৌর বাজারের বুক চিরে বয়ে গেছে নাটোর-পাবনা মহাসড়ক। এই সড়কে দুর্ঘটনা ও যানজট কমাতে মাঝ বরাবর ডিভাইডার দেওয়া হয়েছে। আর তখন থেকেই শুরু হয়েছে ভোগান্তি। ডিভাইডারের দুই পাশে কার্পেটিং উঠে হাজারও খানাখন্দের সৃষ্টি হয়। এরপর সেখানে ইট বিছিয়ে চলাচলের উপযোগী করার চেষ্টা করা হয়। কিন্তু এই সড়কে মোংলা বন্দর, রূপপুর পরমাণবিক কেন্দ্রসহ অন্যান্য জেলায় চলাচলকারী অধিক ভারী যানবাহন চলাচলের কারণে দুই-একদিনেই সেই ইট ভেঙে ধুলায় পরিণত হচ্ছে। আর এবড়ো-থেবড়ো ৫০০ মিটার সড়ক পার হতে আটকে যাচ্ছে গাড়ি। শুরু হচ্ছে যানজটের। এতে এই পথে চলাচলকারী শিক্ষার্থী, পথচারী, যাত্রী এবং সড়কের উভয় পাশের দোকানিরা চরম ভোগান্তিতে পড়ছেন। বনপাড়া পৌর মেয়র কে এম জাকির হোসেন ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, এত গুরুত্বপূর্ণ একটি সড়ক এখানে সংস্কারের এই হাল মেনে নেওয়া কষ্টকর। পৌরবাসীকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

সওজ নাটোরের নির্বাহী প্রকৌশলী নজেস রহমান বলেন, আমি এই সপ্তাহেই যোগদান করেছি। প্রাথমিকভাবে জেনেছি সড়কের এই অংশ সংস্কারের জন্য ইতিমধ্যে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কাজ শুরু করেছে। অতিদ্রুত সময়ে যাতে তারা সংস্কার কাজ শেষ করে সে বিষয়ে পদক্ষেপ নেব।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর