শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ১০ মে, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৯ মে, ২০২১ ২৩:৩৭

সেতুর অভাবে দুর্ভোগ

বাবুল আখতার রানা, নওগাঁ

সেতুর অভাবে দুর্ভোগ
Google News

নওগাঁর আত্রাইয়ে একটি সেতুর অভাবে যুগ যুগ থেকে চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন হাজার হাজার সাধারণ মানুষ। খালের ওপর সেতু নির্মিত না হওয়ায় কৃষকদের মাঠের ধান কেটে ঘরে তুলতে দ্বিগুণ খরচ করতে হয়। বিভিন্ন সময় স্বেচ্ছাশ্রমে বাঁশের সাঁকো নির্মাণ করা হলেও পানি ও রোদে প্রতি বছরই সাঁকো বিনষ্ট হয়ে যায়। ফলে তাদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। জানা যায়, উপজেলার ভোঁপাড়া ইউনিয়নের একটি গ্রাম জামগ্রাম। জনসংখ্যার দিক থেকে সহস্রাধিক লোকের বসবাস এ গ্রামে। গ্রামের প্রায় সব লোকই কৃষক। এ গ্রামের পশ্চিম দিক দিয়ে বয়ে গেছে রক্তদহ লোহাচুরা খাল। খালটি সম্প্রতি পুনর্খননের কারণে অনেক গভীর হয়ে গেছে। খালের পূর্ব পাশে জনবসতি। আর পশ্চিম পাশে বিস্তীর্ণ মাঠজুড়ে এ গ্রামের কৃষকদের জমি। যুগ যুগ থেকে এ খালের ওপর কোনো সেতু নির্মিত না হওয়ায় এসব জমিতে আবাদকৃত ধান কেটে বাড়ি পৌঁছাতে কৃষকদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। এ ছাড়াও খালের পশ্চিম পাশে রয়েছে গ্রামবাসীর কবরস্থান। খালের ওপর কোনো সেতু না থাকায় বর্ষাকালে লাশ দাফনেও বিপাকে পড়তে হয়। ওই গ্রামে প্রতি বছর অনুষ্ঠিত হয় ঐতিহ্যবাহী শীতাতলার মেলা। যে মেলায় দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে ভক্তবৃন্দ, ব্যবসায়ী ও দর্শনার্থী এসে থাকেন। খালের দুই পাড়ে মেলা বসলেও খালের ওপর কোনো সেতু না থাকায় তাদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। জামগ্রামের জনি মিয়া বলেন, গ্রামবাসীর উদ্যোগে বর্ষা মৌসুমে খালের ওপর বাঁশের সাঁকো নির্মাণ করা হয়। এ সাঁকোতে কোনো মতে বর্ষা পার হলেও ধানের মৌসুমে এটি আর কাজে আসে না। ফলে খালের ওইপার থেকে ধান নিয়ে আসতে খুবই কষ্ট হয়। স্থানীয় ইউপি সদস্য হানিফ পালোয়ান বলেন, খালের ওপর একটি সেতু নির্মাণ প্রাণের দাবি।

কেননা খালের পশ্চিম পাড়ে রয়েছে গ্রামবাসীর একটি কবরস্থান। সেতু না থাকায় বর্ষাকালে আমাদের মৃত ব্যক্তিদের লাশ বহন করতে যেমন দুর্ভোগ পোহাতে হয়, তেমনি শুষ্ক মৌসুমে আমাদের এলাকার প্রধান আবাদ বোরো ধান ঘরে তুলতেও চরম দুর্ভোগের শিকার হতে হয়। আত্রাই উপজেলা চেয়ারম্যান এবাদুর রহমান বলেন, এখানে খালের ওপর একটি সেতু নির্মাণ খুবই প্রয়োজন। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে বাস্তবায়ন করার চেষ্টা করা হবে।