শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৬ জুন, ২০২১ ২৩:১৭

ঝিনাইদহ

চুরির মিথ্যা অভিযোগে উত্তেজনা পুলিশ মোতায়েন

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

Google News

শৈলকুপায় দর্জির দোকানে আটকে রেখে স্কুলছাত্রীর বিরুদ্ধে মিথ্যা চুরির অভিযোগের জেরে শহরে উত্তেজনা বিরাজ করছে। পরিস্থিতি শান্ত রাখতে গতকাল উপজেলা শহরে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। জানা গেছে, গত মঙ্গলবার বিকালে উপজেলার সাতগাছি গ্রামের বিপ্লব খানের মেয়ে দশম শ্রেণির ছাত্রী সাবিয়া খাতুন ঢাকায় থাকা তার বড় বোনের কাছে বিকাশের মাধ্যমে টাকা পাঠানোর জন্য শৈলকুপা শহরে যায়। পরে তার এক বন্ধুর কথামতো শৈলকুপা চৌরাস্তা মোড়ে পাইলট হাইস্কুল মার্কেটের দ্বিতীয় তলায় সোহেল নামের এক দর্জির দোকানে বসে। দোকান মালিক দর্জি সোহেল তাকে বসতে দিয়ে কিছু সময়ের জন্য বাহিরে যান এবং ফিরে এসে বলেন তার ক্যাশবাক্স থেকে ৭ হাজার ৫০০ টাকা চুরি  হয়েছে। চুরির অপবাদ দিয়ে সাবিয়া খাতুনকে আটক করে এবং জিহাদ নামের এক ব্যক্তিকে ডেকে এনে তাকে মারধরসহ শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেন। এ ব্যাপারে সাবিয়ার পিতা বিপ্লব খান জানান, মেয়ের আসতে বিলম্ব হওয়ায় তার মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলে অজ্ঞাতনামা এক ব্যক্তি সাবিয়ার ফোন রিসিভ করে বলেন আপনার মেয়েকে নিয়ে যান। পরে মেয়েকে আনতে গেলে সোহেল ও জিহাদ তার দোকানে ক্যাশবাক্স থেকে সাবিয়া টাকা চুরি করেছে বলে দাবি করেন। এই ঘটনাকে কেন্দ্র  করে উভয়ের মধ্যে বাকবিতন্ডা হয়। তারা আটক স্কুলছাত্রী  সাবিয়া খাতুনকে ছেড়ে দেয়। এ ব্যাপারে সাবিয়া খাতুন জানায়, আমি দর্জি সোহেলের দোকানে গেলে আমাকে বসতে দিয়ে  বলে  আমি আসছি। কিছু সময় পর জিহাদ নামের এক ব্যক্তির সঙ্গে এসে বলে আমার ক্যাশবাক্স থেকে তুমি ৭ হাজার ৫০০ টাকা চুরি করেছ।

এই বিভাগের আরও খবর