বৃহস্পতিবার, ২ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ টা

ক্রাইমজোন কসবার ৬ গ্রাম

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি

ক্রাইমজোন কসবার ৬ গ্রাম

ক্রাইমজোনে পরিণত হয়েছে কসবা উপজেলার ছয়টি গ্রাম। মাদকাসক্ত, নেশার টাকা জোগাতে বহুমাত্রিক অপরাধ, চুরি, সন্ত্রাসী কর্মকান্ডসহ বহুমাত্রিক অপরাধ করেই যাচ্ছে স্থানীয় একটি চক্রটি। গত দেড় বছর ধরে তাদের দাপটে নির্ঘুম রাত কাটছে ৬ গ্রামের সাধারণ মানুষ। তাদের অপকর্মের শিকার হয়ে বহু পরিবার এখন নিঃস্ব। এমন অভিযোগ ভুক্তভোগীদের। এ নিয়ে চরম নিরাপত্তাহীন আর আতঙ্কিত স্থানীয়রা। গ্রাম ওয়ার্ড পর্যায়ে প্রতিবাদ সভা, দুজনকে পুলিশে সোপর্দ করাসহ একাধিক জিডি মামলা হয়েছে। এরপরও থামানো যাচ্ছে না তাদের অত্যাচার। পুলিশ সুপারের কাছে লিখিত অভিযোগ দেওয়া হয়েছে। জানা যায়, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলার বিনাউটি ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডে নোয়াপাড়া, চন্দ্রপুর, ভরাজাঙ্গাল, খারঘর, গাববাড়ি, ধামসার এ গ্রাম অবস্থিত। স্থানীয় একটি সংঘবদ্ধ চক্র মদ গাঁজা, হেরোইন, ইয়াবাসহ বিভিন্ন রকম মাদক সেবন-বিক্রির মাধ্যমে এলাকাটিকে ক্রাইম জোনে পরিণত করেছে। এলাকাবাসী জানায়, সম্প্রতি গাববাড়ি গ্রামের মনিরের সিএনজি, বিনাউটি গ্রামের জয়নালের মোটরসাইকেল চুরি হয়। পাশাপাশি সময়ে চন্দ্রপুর গ্রামের পল্লী চিকিৎসক সঞ্জিত চন্দ্র দাসের ঘরের তালা ভেঙে ওষুধ, সার, কীটনাশক চুরির ঘটনায় সালিশী সভায় উপযুক্ত সাক্ষ্য প্রমাণের ভিত্তিতে প্রমাণিত হওয়ায় চিহ্নিতদেরকে জরিমানা করা হয়। কিন্তু অভিযুক্তরা সালিশের রায় না মেনে উল্টো অভিযোগকারীদের প্রাণনাশের হুমকিসহ ভয়ভীতি প্রদর্শন করে। তাছাড়া নোয়াপাড়া গ্রামের মোহাম্মদ আওয়াল মিয়া, মুজিবুর রহমান, চন্দ্রপুরের দুলাল মিয়া, খারঘরের মফিজ মিয়াসহ অনেকেরই গরু চুরি হয়েছে। অনেকের পানি সেচের মোটর, ফ্যান, স্বর্ণালঙ্কার, গৃহস্থালির ব্যবহার্য সামগ্রীও চুরি হয়েছে।

এই রকম আরও টপিক