শিরোনাম
প্রকাশ : ২৮ জানুয়ারি, ২০২০ ২১:৫৩

মৌলভীবাজারে অগ্নিকাণ্ডে একই পরিবারের ৩ জনসহ নিহত ৫

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি

মৌলভীবাজারে অগ্নিকাণ্ডে একই পরিবারের ৩ জনসহ নিহত ৫

মৌলভীবাজার শহরের সেন্ট্রাল রোডে পিংকি সু স্টোরে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে শিশুসহ পাঁচজন নিহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে একই পরিবারের ৩ সদস্য রয়েছেন। 

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। দুই ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে ফায়ার সার্ভিসের ৪টি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। পরে ভবনের ভেতর থেকে পাঁচজনের লাশ উদ্ধার করে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে পাঠনো হয়েছে।

নিহতরা হলেন- পিংকি সু স্টোরের সত্ত্বাধিকারী সুভাষ রায় (৬৫),  সুভাষ রায়ের মেয়ে প্রিয়া রায় (১৯), সুভাস রায়ের ভাইয়ের স্ত্রী দিপ্তী রায় (৪৮), সুভাষ রায়ের দুই আত্মীয় দিপা রায় ও তার মেয়ে বৈশাখী রায় (৩)। তারা দুজন হবিগঞ্জের উমেদনগরের বাসিন্দা।

স্থানীয়রা জানান, শহরের সেন্টাল রোডে দুটলা ভবনে দ্বিতীয় তলায় সুভাস রায় তার ভাই মোনা রায় স্বপরিবারে বসবাস করতেন। আর নিচ তলায় একটি জুতার দোকান পরিচালনা করতেন। সোমবার মেয়ের বউভাত শেষে বাসায় ১২ জন সদস্য অবস্থান করেন। আজ মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে ভবনের নিচ তলায় তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়ে তা পুরো ভবনে ছড়িয়ে পড়ে। বিয়ের আনুষ্ঠানিকতায় ক্লান্ত সবাই তখন ঘুমে ছিলেন। আগুন টের পেয়ে পরিবারের সদস্য ও স্বজনদের ৭ জন আশপাশের বাসিন্দাদাদের সহায়তায় বেরিয়ে আসেন। কিন্তু ভয়াবহ আগুনের কবলে আটকা পড়েন ৫ জন। ঘটনাস্থলেই তারা মারা যান।

মৌলভীবাজার ফায়ার সার্ভিসের অতিরিক্তি উপ-পরিচালক আব্দুল্লা হারুন পাশা জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকেই আগুনের সূত্রপাত। পরে বাসার গ্যাস রাইজার ফেটে চারিদিকে আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। ফায়ার সার্ভিসের ৪টি ইউনিট ঘটনাস্থলে এসে দুই ঘণ্টা পর আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে। 

তিনি আরও জানান, এই ভবনটি ঝুকিপূর্ণ ছিল। বের হবার একটিমাত্র পথ ছিল নিচ তলার দোকান দিয়ে যার কারণে সবাই বের হতে পারেননি।
মৌলভীবাজারের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মল্লিকা দে জানান, এ ঘটনার পকৃত কারণ জানতে সহকারী জেলা ম্যাজিস্ট্রেট তানিয়া সুলতানাকে প্রধান করে ৭ সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে এবং এ ঘটনায় নিহতদের পরিবারকে ১ লাখ টাকা অনুদান দেয়া হয়েছে।

বিডি প্রতিদিন/এনায়েত করিম


আপনার মন্তব্য