শিরোনাম
প্রকাশ : ২৬ মার্চ, ২০২০ ০৭:২১

বকেয়া বেতনের দাবিতে ভাঙচুর, পুলিশের গুলিতে শ্রমিক নিহত

দিনাজপুর প্রতিনিধি

বকেয়া বেতনের দাবিতে ভাঙচুর, পুলিশের গুলিতে শ্রমিক নিহত

দিনাজপুরের বিরলে পুলিশের গুলিতে একজন শ্রমিক নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও ৮/৯ জন শ্রমিক।

নিহত সুরত আলী (৩০) দিনাজপুরের বিরল উপজেলার হুসনা গ্রামের মোহাম্মদ আলীর ছেলে।

বুধবার দিবাগত রাত সাড়ে ৯টার দিকে বিরলের রূপালী বাংলা জুট মিলে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, বিরলে রূপালী বাংলা জুট মিলে বকেয়া বেতনের দাবিতে ভাঙচুর করে শ্রমিকরা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ রাবার বুলেট ও টিয়ারসেল নিক্ষেপ করে শ্রমিকদের ছত্রভঙ্গ করার চেষ্টা করে বলে জানিয়েছে প্রত্যক্ষদর্শীরা। এসময় পুলিশের গুলিতে একজন মারা যায় এবং ৮/৯জন শ্রমিক আহত হয় বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

বুধবার বিকালে মিল বন্ধের কোনও নোটিশ না পেয়ে চলমান পরিস্থিতিতে শ্রমিকরা বকেয়া বেতনের দাবিতে মিলের অফিসের সম্মুখে অবস্থান নেওয়া শুরু করে। সন্ধ্যা থেকে আলোচনার মাধ্যমে সমঝোতার চেষ্টা করে ব্যর্থ হওয়ায় ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম আব্দুল লতিফ ঘটনাস্থলে এসে শ্রমিকদের শান্ত করার চেষ্টা করেন। কিন্তু শ্রমিকরা উত্তেজিত হয়ে অফিস ভাঙচুর শুরু করলে বিরল থানা পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে টিয়ারশেল ও রাবার বুলেট ছোঁড়ে।

বিরল থানার ওসি শেখ নাসিম হাবিব জানান, রূপালী বাংলা জুটমিল বৃহস্পতিবার থেকে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। এজন্য শ্রমিকরা আগামী তিন সপ্তাহের বেতন দাবি করে। মালিকপক্ষ দুই সপ্তাহের বেতন দিতে চাইলেও তারা মানতে রাজি হয়নি। এসময় উত্তেজিত শ্রমিকরা মিলে ভাঙচুর চালায় এবং  আগুন লাগিয়ে দেয়। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস আগুন নেভায়। উত্তেজিত শ্রমিকদের শান্ত করতে রাত সাড়ে ৯টার দিকে পুলিশ ১২ রাউন্ড শর্টগানের রাবার বুলেট ছোঁড়ে। এতে একজন শ্রমিক মারা যায়। কয়েকজন আহত হয়।

বিডি প্রতিদিন/কালাম


আপনার মন্তব্য