শিরোনাম
প্রকাশ : ৯ এপ্রিল, ২০২০ ১৯:০২

কর্মহীন পরিবারের পাশে খাদ্যসামগ্রী নিয়ে এমপি গোপাল

দিনাজপুর প্রতিনিধি

কর্মহীন পরিবারের পাশে খাদ্যসামগ্রী নিয়ে এমপি গোপাল

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস রোধে সাধারণ ছুটিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় বীরগঞ্জ উপজেলার পাল্টাপুর ইউনিয়নে ৫০০ কর্মহীন পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।

বুধবার দিবাগত রাতে দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার পাল্টাপুর ইউনিয়নের কুরিটাকিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে কর্মহীন ওইসব পরিবারের মাঝে চাল, ডাল, তেল, আলু, সাবান,মাক্সসহ খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি। 

এসময় তিনি বলেন, করোনা মোকাবিলায় আমাদের সকলকে সচেতন হতে হবে। সরকারের দেওয়া নির্দেশনা আমাদের মেনে চলতে হবে। 

এমপি আরও বলেন, দেশে খাদ্য সংকট নেই। পর্যাপ্ত পরিমাণ খাদ্য মজুদ আছে। দেশের এই সংকটময় মুহুর্তে ঘরবন্দি মানুষদের মাঝে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘরে ঘরে খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দিচ্ছেন। কোনো মানুষ না খেয়ে থাকবে না। 

এসময় কাহারোল থানার ওসি মনোজ কুমারসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে, দিনাজপুরের খানসামায় দরিদ্রদের পাশে দাঁড়িয়েছে যমুনা ব্যাংক লিমিটেডের ফাস্ট এসিস্ট্যান্ট ভাইস-প্রেসিডেন্ট গৌরাংগ চন্দ্র সরকার। 

বৃহস্পতিবার সকালে যমুনা ব্যাংক কর্মকর্তার পক্ষে খানসামা উপজেলার ছাতিয়ানগড় গ্রামে ২০টি পরিবারের মাঝে পরিবার প্রতি ৫০০ টাকা করে প্রদান করেন তার বড় ভাই আকবর আলী শাহ উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক সুভাষ চন্দ্র সরকার।

এসময় উপস্থিত ছিলেন- আংগারপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের ৮নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য রশিদুল ইসলাম শাহ। 

যমুনা ব্যাংক লিমিটেডের ফাস্ট এসিস্ট্যান্ট ভাইস-প্রেসিডেন্ট গৌরাংগ চন্দ্র সরকার জানান, সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে সার্মথ্য অনুযায়ী এলাকার মানুষের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেছি সরকারের পাশাপাশি সকল সামর্থ্যবানরা যদি নিজ নিজ এলাকার দরিদ্র প্রতিবেশীদের পাশে এগিয়ে আসে তাহলে কেউ অনাহারে থাকবে না। 

অপরদিকে, বিরল উপজেলার ধুকুরঝাড়ী কলেজের প্রভাষক মো. সুলতান মাহমুদ বৃহস্পতিবার দিনাজপুর সদরের চেহেলগাজী ইউপি’র উত্তর গোবিন্দপুর নিজ গ্রামে ১শত পরিবারের মাঝে নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন প্রভাষক মো. সুলতান মাহমুদ। ইউনিয়ন পরিষদের ৩নং ওয়ার্ডের সদস্য ও ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি জীবন কুমার রায় জগবন্ধুর সার্বিক তত্ত্বাবধানে এ কার্যক্রম পরিচালিত হয়। 

বিডি প্রতিদিন/এনায়েত করিম


আপনার মন্তব্য