শিরোনাম
প্রকাশ : ১৪ জুলাই, ২০২০ ১৯:১৯

জামালপুরে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি, পানিবন্দি ৪ লাখ মানুষ

নৌকাডুবিতে ১ জন নিহত, নিখোঁজ ১

জামালপুর প্রতিনিধি

জামালপুরে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি, পানিবন্দি ৪ লাখ মানুষ

যমুনাসহ শাখা নদীর পানিবৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় জামালপুরের সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে। যমুনার পানি বেড়ে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বাহাদুরাবাদ পয়েন্টে বিপদসীমার ১১৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে।

অপরদিকে সোমবার রাতে ইসলামপুর উপজেলায় বরযাত্রীবাহী নৌকাডুবিতে এক কিশোরীর মৃত্যু হয়েছে এবং এখনো নিখোঁজ রয়েছে আরও এক শিশু।

টানা বর্ষণ আর উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে প্রতিদিনই যমুনা, ব্রহ্মপুত্রসহ শাখা নদীর পানি বেড়ে নদী তীরবর্তী এলাকা ছাড়াও বিস্তৃর্ণ জনপদে পানি ছড়িয়ে পড়ছে। সব মিলিয়ে জামালপুর সদর, ইসলামপুর, দেওয়ানগঞ্জ, বকশীগঞ্জ, মেলান্দহ, মাদারগঞ্জ ও সরিষাবাড়ী উপজেলার অন্তত ৪০টি ইউনিয়ন ও ৪টি পৌরসভার প্রায় ৪ লাখ মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে।

বসতবাড়ি, ফসলি জমি, নলকূপ বন্যার পানিতে তলিয়ে দুর্গত এলাকায় দেখা দিয়েছে বিশুদ্ধ পানি, খাবার ও গো-খাদ্যের তীব্র সংকট। প্রথম দফার বন্যায় পাওয়া ত্রাণ সহায়তা ফুরিয়ে যাওয়ায় চরম বিপাকে পড়েছে নিম্ন আয়ের মানুষ। বন্যা দুর্গতরা সরকারি আশ্রয় কেন্দ্র ছাড়াও বিভিন্ন ঊঁচু বাঁধ, সেতু এবং সড়কে আশ্রয় নিয়েছে। দুর্গত এলাকার বেশির ভাগ জায়গায় স্থানীয় ও আঞ্চলিক সড়কে বন্যার পানি উঠে সড়ক যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে।   

এদিকে, সোমবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে মেলান্দহ উপজেলার খাসিমারা গ্রাম থেকে বিয়ের অনুষ্ঠান শেষে ইসলামপুর উপজেলার বামনা গ্রামে বরযাত্রী নিয়ে ফেরার পথে যমুনার শাখা নদীতে বলিয়াদহ ডেবরাইপেচ ব্রিজের গার্ডারের সাথে ধাক্কা লেখে ৩০/৩৫ জন যাত্রী নিয়ে নৌকাটি ডুবে যায়। এসময় সবাই সাঁতরে তীরে উঠতে পারলেও ৪ জন নিখোঁজ হয়।

পরে স্থানীয়রা বিদুুৎ আক্তার নামে ১৬ বছর বয়সী এক কিশোরীকে মৃত অবস্থায় ও দু'জনকে অহত অবস্থায় উদ্ধার করে। এ ঘটনায় আলফি নামে ১০ বছরের এক শিশু নিখোঁজ রয়েছে। নিহত বিদুৎ আক্তার পূর্ব বামনা গ্রামের ফলটু মিয়ার মেয়ে ও নিখোঁজ আলফি একই গ্রামের আব্দুল মিয়ার মেয়ে।

বিডি প্রতিদিন/আরাফাত


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর