শিরোনাম
প্রকাশ : ৬ আগস্ট, ২০২০ ১৭:৩৫

প্রতিবন্ধী হেলাল ১৪ বছর পর ফিরে পেলেন মাকে

নাটোর প্রতিনিধি

প্রতিবন্ধী হেলাল ১৪ বছর পর ফিরে পেলেন মাকে

সাজেদা বেওয়ার নাড়ি ছেড়া সন্তান হেলাল। পিতৃহীন প্রতিবন্ধী হেলালকে লালনপালন করতে বাসা বাড়িতে ঝিয়ের কাজ করতেন। সন্তানের মুখের খাবার যোগার করতে বাড়ির বাইরেই ছেলে রেখে যেতেন সাজেদা বেওয়া। 

আর ১৪ বছর আগে একদিন নিখোঁজ হন হেলাল। তার সন্ধান আর পাওয়া যায়নি। বুক ভরা আশা নিয়ে ছিলেন তার সন্তান ফিরবে। মায়ের সেই আশা ভঙ্গ হয়নি। নাটোর সদরের ব্যবসায়ী তারেক মিয়া মায়ের সেই আশা পূরন করেছেন। গতকাল বুধবার (৫ আগস্ট) সন্তানকে তুলে দিয়েছেন মায়ের কাছে।

ব্যবসায়ী তারেক মিয়া বলেন, ব্যবসার কারণে তাকে বরিশাল যেতে হয়। সেখানে গিয়ে শুনতে পান এই বুদ্ধি প্রতিবন্ধী হেলালের বাড়ি গুরুদাস উপজেলার চাচকৈড় বাজারে। তার পর সেখান থেকে তাকে নিয়ে এনে তার মায়ের কাছে হস্তান্তর করি।

তারেক মিয়া জানান, বরিশাল কোর্টরোডের নাছির স্টোরের মালিক মো. খোকনের কাছে টুকটাক কাজ করতো হেলাল। আর তিনিই তার খাবার ও পোশাক দিতেন। 

মো. খোকন জানান, প্রায় ১২ বছর আগে হেলাল বরিশালে আসে। পাগল বেশে ঘুরে বেড়াতো তার এইখানে। মাঝে মধ্যে তারসহ আশে পাশের দোকানের টুকিটাকি কাজও করে দিত হেলাল। এভাবে এলাকায় তার সততা ও পরিচিতি বৃদ্ধি পায়। এইভাবে তার এখানে স্থায়ী ভাবে কাজ করতো সে।

সাজেদা বেওয়া বলেন, স্বামী মারা যাওয়ার পর প্রতিবন্ধি এই সন্তান নিয়েই তিনি থাকতেন। তবে সন্তান হারিয়ে গেলেও তার বিশ্বাস ছিলো আল্লাহ তার সন্তানকে ফিরিয়ে দিবেন। আর আল্লাহ তার আশা পূরন করেছেন।


বিডি-প্রতিদিন/সিফাত আব্দুল্লাহ


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর