শিরোনাম
প্রকাশ : ১১ আগস্ট, ২০২০ ১৫:৪০

বাড়ির সীমানা নিয়ে বিরোধে চাচাত ভাইদের হাতে যুবক খুন

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি

বাড়ির সীমানা নিয়ে বিরোধে চাচাত ভাইদের হাতে যুবক খুন
প্রতীকী ছবি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় বাড়ির সীমানা নিয়ে বিরোধের জেরে আপন চাচাত ভাইদের হাতে ওবায়দুল হক নিরব (২২) নামে এক যুবক খুন হয়েছেন।  সোমবার রাতে উপজেলার বাদৈর ইউনিয়নের বর্নি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। 

নিহত নিরব বর্নি গ্রামের মো. হারুনুর রশীদের ছেলে। তিনি পেশায় একজন ইজিবাইক চালক ছিলেন। এ ঘটনায় নিহত নিরবের স্ত্রী বাদী হয়ে চারজনকে আসামি করে কসবা থানায় হত্যা মামলা করেছেন।

জানা যায়, উপজেলার বর্নি গ্রামের নিরবের পিতা হারুনুর রশিদ ও তার ভাই ইউনিয়ন কৃষক লীগ সভাপতি মো. সামছু মিয়ার সাথে দীর্ঘদিন যাবত বাড়ির সীমানা নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। প্রায় একমাস আগে গ্রামের মান্যজনরা বসে বাড়ির সীমানা নির্ধারণ করে সমস্যার সমাধান করে দেন। গত সোমবার নিরব চাচাত ভাইদের সাথে রাগ করে একটি সীমানা খুটি তুলে ফেলেন। পরে নিরবের বাবা নিরবকে সীমানা খুটি তোলার কারণে অনেক বকাঝকা করে খুটি পুনরায় বসাতে বলেন এবং তার চাচার কাছে মাফ চাইতে বলেন। বাবার কথামতো নিরব খুটি তোলার অপরাধের জন্য চাচা সামছু মিয়ার ঘরে মাফ চাইতে গেলে চাচা, চাচি ও দুই চাচাত ভাই রোমান ও সুমন তাকে বেধড়ক মারধর করেন। একপর্যায়ে ইজিবাইকের ভাঙা কাচের টুকরা দিয়ে নিরবের বুকে আঘাত করলে ঘটনাস্থলেই তিনি মৃত্যুবরণ করেন। 

নিরব গত ৬ মাস আগে বিয়ে করেছিলেন। তার স্ত্রী বর্তমানে ৫ মাসের গর্ভবতী। স্বামীর মৃত্যুতে স্ত্রী বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েছেন। অনাগত সন্তানের মুখ দেখার সৌভাগ্য হলো না নিরবের। পরিবারে চলছে শোকের মাতম।

কসবা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ লোকমান হোসেন বলেন, সীমানা বিরোধের জেরে নিরব খুন হয়েছেন। এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী থানায় একটি হত্যা মামলা করেছেন। আসামিরা পলাতক রয়েছেন। তাদের দ্রুত গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত আছে। 

বিডি প্রতিদিন/জুনাইদ আহমেদ


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর