শিরোনাম
প্রকাশ : ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৬:৪১

গরু চারাগাছ খাওয়ায় ঢাবি ছাত্রীকে মারধর ও শ্লীলতাহানির অভিযোগ

নেত্রকোনা প্রতিনিধি

গরু চারাগাছ খাওয়ায় ঢাবি ছাত্রীকে মারধর ও শ্লীলতাহানির অভিযোগ

জমিতে চারাগাছ খেয়েছে অভিযোগ তুলে ঢাবির বাংলা বিভাগের শেষ বর্ষের এক শিক্ষার্থীকে মারধর ও শ্লীলতাহানির অভিযোগ উঠেছে একই গ্রামের আপেল ও লাল চান নামের দুই যুবকের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার দুপুরে নেত্রকোনার কলমাকান্দা উপজেলার পোগলা ইউনিয়নের আতকাপাড়া গ্রামে। এ ঘটনায় খবর পেয়ে কলমাকান্দা থানার পুলিশ লালচান (২৫) নামের এক যুবককে আটক করেছে। 

ভুক্তভোগী আতকাপাড়া গ্রামের মৃত আবু শ্যামার মেয়ে কেয়া আক্তার কাকলি জানান, তার বাবা নেই। মা ভাই ও তিন বোনের সংসার। তাদের একটি গরুর (ছানা) বাছুর হয়েছে গত একমাস হয়। পার্শ্ববর্তী রাজু মিয়ার ছেলে আপেল ও লালচান বুধবার দুপুরের দিকে এসে তাদের বাড়িতে অভিযোগ করে গরুর বাছুর তাদের জালা ক্ষেত (চারাগাছ) খেয়েছে। কিন্তু একমাস বছর বয়সি বাছুর কখনোই ঘাস খেতে পারে না। এই বিষয়ে কেয়া এবং তার মা হোসেনে আরা কথা বললে তাদের সাথে আপেল ও লালচানের ঝগড়া লেগে যায়। এক পর্যায়ে মা-মেয়ে দু'জনকেই মারধর করে। এতে কেয়ার মাথা রক্তাক্ত হয়। পাশাপাশি তার শরীরের বিভিন্ন অঙ্গে স্পর্শ করে শ্লীলতাহানি করে। বাড়ির লোকজন কেয়াকে কলমাকান্দা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠিয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়।

এ ব্যাপারে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম রফিকের সাথে বলেন, আমি একটি প্রশিক্ষণে নেত্রকোনায় আছি। খোঁজ নিয়ে দেখছি কি ব্যবস্থা নেয়া যায়। তবে তিনি বলেন, মেয়েদের গায়ে হাত তোলা তো জঘন্য অপরাধ। এমন অপরাধীদের শাস্তির আওয়াতায় আনা জরুরি সে যেই হোক। 

কলমাকান্দা থানার ওসি মো. মাজাহারুল করিম জানান, ঘটনাস্থল থেকে লালচান নামের এক যুবককে আটক করা হয়েছে। আমরা জিজ্ঞাসাবাদ করছি। 


বিডি প্রতিদিন/ ওয়াসিফ


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর