শিরোনাম
প্রকাশ : ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৬:৩৭

মেহেন্দিগঞ্জে বৃদ্ধার চুল কেটে নির্যাতন!

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল

মেহেন্দিগঞ্জে বৃদ্ধার চুল কেটে নির্যাতন!
সংবাদ সম্মেলনে কথা বলেন ভুক্তভোগী সফুরা বেগমের মেয়ে (বাঁয়ে) ও ভাঙা পা দেখাচ্ছেন ভুক্তভোগী

বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলায় এক বৃদ্ধাকে নির্যাতন করে চুল কেটে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। শুক্রবার দুপুর সাড়ে ১২টায় বরিশাল প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এমন অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী বৃদ্ধা সফুরা বেগম (৬৫)। তার গ্রামের বাড়ি মেহেন্দিগঞ্জের কাজীরহাট থানার আন্দারমানিক গ্রামে।

সংবাদ সম্মেলনে সফুরা বেগম বলেন, একই এলাকার সেকান্দার আলী হাওলাদারের কাছ থেকে ২০০৬ সালের নভেম্বর মাসে ৪০ হাজার টাকায় ১৮ শতাংশ জমি ক্রয় করে বাড়ি নির্মাণ করেন সফুরা বেগম। সম্প্রতি সেকান্দার ওই জমি বাবদ আরও দুই লাখ টাকা দাবি করেন। এ নিয়ে বিরোধ সৃষ্টি হলে গত ১৫ জুলাই বৃদ্ধা সফুরার উপর নির্মম নির্যাতন চালানো হয়। এসময় তার চুল কেটে এবং কুপিয়ে আহত করে প্রতিপক্ষের লোকজন। 

এ ঘটনায় দীর্ঘদিন চিকিৎসার পর গত সপ্তাহের শেষ দিকে হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র পান তিনি। শুক্রবার সংবাদ সম্মেলন করে ওই ঘটনার প্রতিকার দাবি করেন ভুক্তভোগী ও তার পরিবার।

এদিকে, মামলা থেকে আসামিরা জামিনে বের হয়ে পুনরায় নানাভাবে হয়রানি, হুমকি এবং নির্যাতন চালাচ্ছে বলে অভিযোগ করেন সফুরা বেগম। এ অবস্থায় পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সুদৃষ্টি কামনা করেছে ভুক্তভোগীর পরিবার। 

নির্যাতনকারীদের কঠোর বিচার চেয়েছেন সফুরা বেগমের মেয়ে সোনিয়া বেগম। তিনি নিজ বাড়িতে শান্তিতে বসবাসের পরিবেশ সৃষ্টির দাবিও জানান। 

নারীর চুল কেটে দেওয়ার ঘটনায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে অভিযুক্তদের কঠোর বিচার দাবি করেছেন বরিশাল সচেতন নাগরিক কমিটির (সনাক) সভাপতি অধ্যাপক শাহ্ সাজেদা। 

জেলা পুলিশ সুপার মো. সাইফুল ইসলাম বলেন, জমি নিয়ে ওই দুই পরিবারের পুরোনো বিরোধের জের ধরে উভয়পক্ষ পৃথক দৃটি মামলা দায়ের করেন। পুলিশ অভিযুক্তদের গ্রেফতার করেছিল। জামিনে বেড়িয়ে এসে তারা ফের ওই পরিবারকে কোনো নির্যাতন করে থাকলে, তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

বিডি প্রতিদিন/এমআই


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর