শিরোনাম
প্রকাশ : ২৮ অক্টোবর, ২০২০ ১৮:২০

বাগেরহাটে ধর্ষণের মামলায় শ্রমিক লীগ নেতাসহ ৫ জনকে রিমান্ডে চায় পুলিশ

বাগেরহাট প্রতিনিধি

বাগেরহাটে ধর্ষণের মামলায় শ্রমিক লীগ নেতাসহ ৫ জনকে রিমান্ডে চায় পুলিশ

বাগেরহাটে এক গার্মেন্টস কর্মীকে ধর্ষণের ঘটনায় আটক ইউপি সদস্য ও ইউনিয়ন শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ মিজানুর রহমানসহ ৫ জনকে পাঁচদিনের রিমান্ড চেয়েছে পুলিশ। একই সাথে প্রধান অভিযুক্ত মিজানুর রহমানের ডিএনএ টেস্টের জন্য আবেদন করা হয়েছে। বুধবার দুপুরে  অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আবীর পারভেজের আদালতে এই আবেদন করা হয়। 

অন্য আসামীরা হলেন বাগেরহাট সদর উপজেলার চিন্তারখোড় গ্রামের অমল মৃধার ছেলে বিকাশ মৃধা (১৯), নারায়ন চন্দ্র সরকারের ছেলে সুকান্ত সরকার (৩২), অসীম বিশ্বাসের ছেলে বিধান বিশ্বাস (২৮) এবং মো. আনোয়ার ফকিরের ছেলে মো. সোহেল ফকির (২৩)।

মঙ্গলবার দুপুরে নির্যাতনের শিকার ওই নারী ৫ জনসহ অজ্ঞাত আরও ৩ জনের নামে মামলা দায়ের করেন। মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে, সোমবার বিকেলে থেকে বন্ধুদের সাথে বিভিন্ন মন্ডপে পূজা দেখে যাত্রাপুর বাজার থেকে রাতে ভ্যানযোগে বাড়ি রওনা দেয়। রাত দশটার দিকে বাকপুড়া মোড়ে পৌঁছালে ইউপি সদস্য মিজানুর রহমান তার গতিরোধ করে। একপর্যায়ে  ভ্যান থেকে নামিয়ে বাকপুড়ায় অবস্থিত ইউনিয়ন ভূমি অফিসের নতুন ভবনের পিছনে নিয়ে ধর্ষণ করে। পরে রাত পৌনে ১২ টার দিকে ওই নারীকে সেখানে রেখে চলে যায়। পরে মেয়েটিকে একা  ফাঁকা রাস্তায় হাঁটতে দেখে ১২টার দিকে বিকাশ মৃধা, সুকান্ত সরকার, বিধান বিশ্বাস, মো. সোহেল ফকিরসহ কয়েকজন হদেরহাট বাজারস্থ আবুল হোসেনের বিল্ডিংয়ের পিছনে নিয়ে শ্লীলতাহানী ঘটায়। 

বাগেরহাটের পুলিশ সুপার পংকজ চন্দ্র রায় জানান, মামলা দায়েরের পর তরুনীর ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। আটককৃত ৫ আসামিকে ৫ দিনের রিমান্ড চাওয়া হয়েছে। এছাড়া প্রধান অভিযুক্তকে ডিএনএ টেস্ট করানোর আবেদন করা হয়ছে। 

বিডি প্রতিদিন/আল আমীন

BP

আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর