শিরোনাম
প্রকাশ : ২৬ নভেম্বর, ২০২০ ১৪:৪৩
আপডেট : ২৬ নভেম্বর, ২০২০ ১৪:৫৪
প্রিন্ট করুন printer

নেশার টাকার জন্য নবজাতককে হত্যা, পিতা আটক

দিনাজপুর প্রতিনিধি

নেশার টাকার জন্য নবজাতককে হত্যা, পিতা আটক

নেশার টাকা না পেয়ে ফুলবাড়ীতে সুর্য মহন্ত নামের ২২ দিনের এক নবজাতককে বটি দিয়ে নির্মমভাবে কুপিয়ে হত্যা করেছে মাদকাসক্ত পিতা সুভাশ চন্দ্র মহন্ত। বৃহস্পতিবার সকাল ৭টায় দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার বারাই হাট এলাকার ভোলা পাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। 

এ ঘটনায় মাদকাসক্ত পিতা সুবাশ মহন্তকে (২৮) আটক করেছে ফুলবাড়ী থানা পুলিশ। আটক সুবাশ মহন্ত ওই গ্রামের সুনিল চন্দ্র মহন্তের ছেলে।

প্রতিবেশী ও পুলিশ জানায়, সুভাষ মহন্তের সাথে অনামিকার দুই বছর আগে পারিবারিক সিদ্ধান্তে বিয়ে হয়। সুবাশ মহন্ত দীর্ঘদিন থেকে মাদকাসক্ত ছিলেন। সে মাঝে মধ্যেই নেশার টাকার জন্য পরিবারের সদস্যদের উপর নির্যাতন চালিয়ে আসছিলো, এ নিয়ে তাদের মধ্যে পারিবারিক অশান্তি ছিলো। এরই এক পর্যায়ে বুধবার সন্ধ্যা থেকে সুবাশ মহন্ত তার স্ত্রী অনামিকা মহন্তের সাথে ঝগড়া-বিবাদ চলে এবং মারধর করে। ঘটনাটি এলাকাবাসী অনামিকার বাবার বাড়িতে খবর দিলে বৃহস্পতিবার এ বিষয়ে দুই পরিবারের মাঝে সমঝোতার বৈঠক হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু এরই মধ্যে বৃহস্পতিবার সকাল ৭টায় সুভাষ মহন্তের বাড়ির বন্ধ ঘর থেকে চিৎকার শুনে এলাকাবাসী ছুটে এসে ঘরের চালার টিন খুলে ভিতরে ঢুকে, রক্তাক্ত অবস্থায় ওই নবজাতক শিশুর লাশ পড়ে থাকতে দেখে। লাশ উদ্ধার করে আহত অবস্থায় স্ত্রী অনামিকাকে হাসপাতালে ভর্তি করে স্থানীয়রা এবং স্বামী সুভাষকে আটক করে থানায় খবর দেন। খবর পেয়ে ফুলবাড়ী থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নবজাতকের লাশ উদ্ধার করে পিতা সুভাষ মহন্তকে আটক করে নিয়ে আসে।

ফুলবাড়ী থানার ওসি মো. ফখরুল ইসলাম বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে ওই নবজাতকের মরদেহ উদ্ধার এবং সুভাশ চন্দ্র মহন্তকে আটক করা হয়েছে। এ ব্যাপারে ফুলবাড়ী থানায় সুভাশ চন্দ্র মহন্তসহ তার মা-বাবাকে আসামি করে নারী ও শিশু দমন আইনে হত্যা মামলার প্রস্তুতি করা হচ্ছে। আসামি সুভাশ চন্দ্র মহন্তকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে এবং নবজাতকের লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। নবজাতকের মা আহত অনামিকাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

 

বিডি প্রতিদিন/ ওয়াসিফ


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ১৫:৫০
প্রিন্ট করুন printer

শ্রীবরদীতে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর ৫০ শিক্ষার্থী পেল সাইকেল

শেরপুর প্রতিনিধি

শ্রীবরদীতে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর ৫০ শিক্ষার্থী পেল সাইকেল

শেরপুরের শ্রীবরদী উপজেলার গারো পাহাড়ের ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর ৫০ শিক্ষার্থীকে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার বাইসাইকেল বিতরণ করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় হতে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়নে গৃহীত বিশেষ এলাকার জন্য উন্নয়ন সহায়তা কর্মসূচির বরাদ্দকৃত অর্থায়নে সোমবার বিকেলে এসব সাইকেল বিতরণ করে উপজেলা প্রশাসন।

উপজেলা ট্রাইবাল ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন অফিস মাঠে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার নিলুফা আক্তার। সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান এডিএম শহিদুল ইসলাম এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) মনজুর আহসান ও উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা জিয়াউর রহমান প্রমুখ।

প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর নানা সমস্যা তুলে ধরে সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপজেলা ট্রাইবাল ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান প্রাঞ্জল এম সাংমা। পরে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর ৫০ জন শিক্ষার্থীর হাতে একটি করে বাইসাইকেল তুলে দেয়া হয়। 

বিডি প্রতিদিন/এমআই


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ১৫:৪২
প্রিন্ট করুন printer

সরাইলে শিক্ষা বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি

সরাইলে শিক্ষা বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে নারী ও শিশুর স্বাস্থ্য উন্নয়ন বিষয়ক বাস্তবায়ন সংক্রান্ত কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে উপজেলার সৈয়দ সিরাজুল ইসলাম অডিটরিয়ামে কর্মশালার আয়োজন করা হয়।

কর্মশালায় কর্মমুখী সমাজকল্যাণ সংস্থার চেয়ারম্যান ইসমাইল হাসান বিপ্লবের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রোকেয়া বেগম।

বিশেষ অতিথি ছিলেন সরাইলের সদর উপজেলার ৭ নম্বর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল জব্বার, সরাইল উপজেলা রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি মো. নুরুল হুদা, উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা হাজী ইকবাল, সৈয়দটুলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা নাসিমা ইয়াসমিন ও চুন্টা বড়াইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা শেফালী ওয়াস্তি প্রমুখ।

এতে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের ইমাম, কাজি, শিক্ষক-শিক্ষিকা, সমাজসেবীসহ ৫৫ জন অংশগ্রহণ করেন। কর্মশালাটি মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতা ও কর্মমুখী সমাজকল্যাণ সংস্থার বাস্তবায়নে অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

বিডি প্রতিদিন/এমআই


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ১৫:৪১
প্রিন্ট করুন printer

কোস্টগার্ডের উদ্যোগে মুন্সীগঞ্জে শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি

কোস্টগার্ডের উদ্যোগে মুন্সীগঞ্জে শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ

মুন্সীগঞ্জের চরাঞ্চলের মেঘনা পাড়ের বকচরে অসহায় দরিদ্র শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করেছে বাংলাদেশ কোস্টগার্ড পরিবার কল্যাণ সংঘ ঢাকা জোন।

আজ মঙ্গলবার দুপুরের সদর উপজেলার চরাঞ্চলের মেঘনা পাড়ের বকচরের মাদানিয়া-হামিদিয়া মাদ্রাসা মাঠে শতাধিক শীতার্ত পরিবারের মাঝে এই শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়।

কোস্টগার্ড পরিবার কল্যাণ সংঘ ঢাকা জোনের আয়োজনে শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র তুলে দেন কোস্টগার্ডের স্টেশন কমান্ডার লেফটেন্যান্ট এম আসাদুল ইসলাম। 

এছাড়া অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন কন্টিনজেন্ট কমান্ডার গজারিয়ার পেটি অফিসার আব্দুল কাদের ও বাংলাদেশ ক্ষুদ্র মৎস্যজীবী জেলে সমিতির সদর উপজেলার সাধারণ সম্পাদক সেলিম বেপারী প্রমুখ।

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ১৫:৩০
আপডেট : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ১৫:৩০
প্রিন্ট করুন printer

টাকা নিয়েও প্রেমিকার অশ্লীল ভিডিও ছড়িয়ে দিচ্ছিলেন প্রেমিক!

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী

টাকা নিয়েও প্রেমিকার অশ্লীল ভিডিও ছড়িয়ে দিচ্ছিলেন প্রেমিক!
দুই বছর ধরে এক তরুণীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল হারুনুর রশিদের (৩০)। সে সময় কৌশলে ধারণ করে রেখেছিলেন প্রেমিকার অশ্লীল ছবি এবং ভিডিও। নানা কারণে তাদের প্রেমের সম্পর্ক আর টেকেনি। এখন প্রেমিকার সেই অশ্লীল ভিডিও এবং ছবি ইন্টারনেটের মাধ্যমে ছড়িয়ে দিচ্ছিলেন হারুন। 
 
ওই তরুণী সাবেক প্রেমিক হারুনের সঙ্গে যোগাযোগ করে সেসব ছবি ও ভিডিও মুছে ফেলার অনুরোধও করেন। হারুন দাবি করেন টাকা। এরপর বিভিন্ন সময় ওই তরুণী তিন লাখ টাকাও দেন। কিন্তু তারপরও ছবি এবং ভিডিও ছড়িয়ে যাচ্ছিলেন হারুন। অবশেষে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করেছে।
 
হারুনের বাড়ি রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার নামকান গ্রামের শাহাজাহান প্রামাণিকের ছেলে। সোমবার সন্ধ্যায় রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) একটি দল তাকে গ্রেফতার করেছে। 
 
মঙ্গলবার দুপুরে নিজের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে এ তথ্য জানিয়েছেন আরএমপি কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিক। তিনি জানান, হারুনুর রশিদ আসলে ওই তরুণীর সঙ্গে দু’বছর ধরে প্রেমের অভিনয় করেছেন। মেয়েটির দুর্বলতার সুযোগে হারুন তার অশ্লীল ভিডিও এবং ছবি সংরক্ষণ করে রেখেছিলেন। নানা কারণে মনোমালিন্য হলে এখন তাদের আর কোনো সম্পর্ক নেই। গত ১১ জানুয়ারি মেয়েটি জানতে পারেন, হারুন অন্য একটি নামে ফেসবুক আইডি থেকে তার ভিডিও এবং ছবি পরিচতদের ম্যাসেঞ্জারে পাঠাচ্ছেন।
 
বিষয়টি জানতে পেরে ওই তরুণী হারুনের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। এসব মুছে ফেলার জন্য হারুন তখন তিন লাখ টাকা দাবি করেন। মানসম্মানের ভয়ে ওই তরুণী বিভিন্নভাবে টাকা ম্যানেজ করে হারুনের হাতে তুলে দেন। কিন্তু তারপরও হারুন থামেননি। আগের মতোই তিনি ভিডিও এবং ছবি ছড়াচ্ছিলেন ইন্টারনেটে। দাবি করছিলেন আরও টাকা। এ নিয়ে ভুক্তভোগী তরুণী নগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানায় পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে একটি মামলা করেন। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আরএমপির সাইবার ক্রাইম ইউনিটের সহায়তায় হারুনকে তার নিজ গ্রাম থেকে গ্রেফতার করে আনে।
 
পুলিশ কমিশনার জানান, হারুনের মুঠোফোন জব্দ করা হয়েছে। সেটি ফরেনসিক ল্যাবে পরীক্ষা করা হবে। এতে বোঝা যাবে, এই মুঠোফোন দিয়ে হারুন আর কোনো তরুণীর সঙ্গে এমন প্রতারণা করেছেন কিনা। এছাড়া তদন্ত কর্মকর্তা মঙ্গলবারই হারুনকে আদালতে তুলবেন। আদালতে তার রিমান্ড চাওয়া হবে। রিমান্ড মঞ্জুর হলে তাকে থানায় এনে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে বলেও জানান তিনি।
 
বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন

আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ১৫:২৯
প্রিন্ট করুন printer

একজন মাদক সম্রাটকে প্রশ্রয় দিচ্ছেন? সেতুমন্ত্রীকে মির্জা কাদের

অনলাইন ডেস্ক

একজন মাদক সম্রাটকে প্রশ্রয় দিচ্ছেন? সেতুমন্ত্রীকে মির্জা কাদের
সংগৃহীত ছবি

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের বসুরহাট পৌরসভার নব-নির্বাচিত মেয়র আবদুল কাদের মির্জা বলেছেন, একজন দুশ্চরিত্র- মাদক সম্রাটকে আপনি প্রশ্রয় দিচ্ছেন। কেউ না থাকলে আমি আবদুল কাদের মির্জা রাস্তায় একা থাকবে। প্রয়োজনে জীবন উৎসর্গ করবো।

সোমবার রাত ৮টায় বসুরহাট বাজারের রুপালি চত্বরে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

কাদের মির্জা বলেন, আমি নেতার কথা বলবো না, উনি কোনো রকমের কথাবার্তা বলছেন না। আমি আজ স্পষ্ট ভাষায় বলবো- আপনারা কী জানেন আমি রাজাকারের সন্তান? ওবায়দুল কাদের সাহেব উনি বড় নেতা। উনি উনার দৃষ্টিকোণ থেকে এটিকে কোনভাবে নিয়েছেন, আমি জানি না।

তিনি আরও বলেন, আমাদের প্রতিবাদ করতে দিচ্ছেন না, আমাদের কর্মসূচি পালন করতে দিচ্ছেন না। রক্তচক্ষু দেখাচ্ছেন। আমি কারও রক্তচক্ষুকে ভয় পাই না। আমি কারও খাই না কারও পরিও না। আমরা কি কথা বলতে পারবো না? থামিয়ে দেবেন? থামিয়ে দিতে পারবেন না।

কাদের মির্জা বলেন, একরাম চৌধুরীকে দল থেকে বহিষ্কার করতে হবে। আমাদের দাবি মানতে হবে। নোয়াখালী আওয়ামী লীগের প্রস্তাবিত কমিটি বাতিল করতে হবে।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি খিজির হায়াত খান, সাধারণ সম্পাদক নুরনবী চৌধুরী প্রমুখ।

বিডি প্রতিদিন/আরাফাত


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর