শিরোনাম
প্রকাশ : ১৬ মার্চ, ২০২১ ১৬:৪২
প্রিন্ট করুন printer

কাদের মির্জাসহ ৯৭ জনের বিরুদ্ধে দ্রুত বিচার আইনে মামলা

নোয়াখালী প্রতিনিধি:

কাদের মির্জাসহ ৯৭ জনের বিরুদ্ধে দ্রুত বিচার আইনে মামলা
ফাইল ছবি

নোয়াখালীর বসুরহাট মেয়র আবদুল কাদের মির্জার বিরুদ্ধে দ্রুত বিচার আইনে মামলা গ্রহণ করেছেন দ্রুত বিচার আদালতের ১ নং বিচারিক আদালত। এছাড়া দুপুরে শুনানি শেষে কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসিকে আগামী ১০ দিনের মধ্যে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। 

মঙ্গলবার (১৬ মার্চ) সকাল ১১টায় দ্রুত বিচার আদালতে এ মামলাটি দায়ের করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা ও কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি খিজির হায়াত খানের স্ত্রী আরজুমান পারভীন। মামলায় কাদের মির্জাকে প্রধান আসামি করে ৯৭ জনকে আসামি করা হয়েছে। 

মামলার বাদী পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট হারুন অর রশিদ হাওলাদার জানান, মেয়র আবদুল কাদের মির্জা ও তার লোকজন গত ৮ মার্চ সন্ধ্যায় কোম্পানীগঞ্জের বসুরহাটে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা খিজির হায়াত খানের ওপর হামলা চালিয়ে তাকে মারধর করে। এসময় হামলাকারীরা ককটেল বিষ্ফোরণ ঘটিয়ে জনমনে আতঙ্ক তৈরি করে। এ ঘটনায় মামলার বাদী আরজুমান পারভীন কোম্পানীগঞ্জ থানায় মামলা করতে গেলে পুলিশ মামলা নেয়নি। এ কারণে মঙ্গলবার সকালে দ্রুত বিচার আদালতে মামলাটি দায়ের করেন আরজুমান পারভীন। দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুানালের বিজ্ঞ বিচারক শোয়েব উদ্দিন খান দুপুরে মামলাটির শুনানি শেষে কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসিকে আগামী ১০ দিনের মধ্যে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেন।

এর আগে, সোমবার (১৫ মার্চ) দুপুরে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ২নং আমলী আদালতে মির্জা কাদেরকে প্রধান আসামি করে ৯৭ জনের নাম উল্লেখ করে মামলার আবেদন করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা খিজির হায়াত খানের স্ত্রী ও উপজেলা ভাইস  চেয়ারম্যান আরজুমান আরা পারভীন। পরে মামলাটি ফেরত দিয়ে বাদীকে আবেদনটি দ্রুত বিচার  ট্রাইব্যুনালে দায়ের করার পরার্মশ দেন আদালত।

অপরদিকে ইকবাল হোসেন বাদী হয়ে দ্রুত বিচার আদালতে মুক্তিযোদ্ধা খিজির হায়াত খান ও সাবেক উপজেলার চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদলসহ ১৯৬ জনের বিরুদ্ধে হামলা ও ভাংচুরের অভিযোগে মামলা করেন। এদিকে বাদলের পরিবার তার মুক্তি দাবি করছেন।

বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর