শিরোনাম
প্রকাশ : ১৪ এপ্রিল, ২০২১ ১৫:১৩
প্রিন্ট করুন printer

ঠাকুরগাঁওয়ে কঠোর লকডাউনে নিরব শহর

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি

ঠাকুরগাঁওয়ে কঠোর লকডাউনে নিরব শহর
Google News

অতি পরিচিত শহর আজ অনেক অপরিচিত। শহরে এক চাপাঁ নিরবতা বিরাজ করছে। নতুন করে সরকারঘোষিত আটদিনের বিধি-নিষেধের প্রথমদিনে ঠাকুরগাঁওয়ের সর্বত্র কঠোরভাবেই লকডাউন পালিত হচ্ছে। এই বিধি-নিষেধ সর্বাত্মকভাবে পালনে বাধ্য করতে শহরের প্রধান সড়ক ও মোড়ে মোড়ে টহল দিচ্ছেন আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও প্রশাসনের কর্মকর্তাবৃন্দ।

আজ লকডাউনের প্রথম দিনে রাস্তায় মানুষ নেই বললেই চলে। প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বের হলেই পুলিশসহ বিভিন্ন বাহিনীর সদস্যদের জেরার মুখে পড়তে হচ্ছে।

রাস্তায় পুলিশের টহল গাড়ি, পণ্যবাহী ট্রাক, রোগীবাহী অ্যাম্বুলেন্স, প্রাইভেটকার, রিকশা, মোটরসাইকেলসহ জরুরি প্রয়োজনে ব্যবহৃত সীমিত সংখ্যক যানবাহন ছাড়া তেমন যানবাহন চোখে পড়েনি। প্রায় প্রতিটি যানবাহনকে থামিয়ে থামিয়ে কী প্রয়োজনে কোথায় যাচ্ছেন তা জানতে চাইছেন পুলিশ সদস্যরা। অপ্রয়োজনে বাইরে বের হয়েছেন নিশ্চিত হলে মামলা দিয়ে বাড়ি পাঠানো হচ্ছে।

সরেজমিনে শহরের চৌরাস্থা, বাজস্ট্যান্ড, সত্যপীরব্রীজ, আটগ্যালারী মোড় এলাকাসহ বিভিন্ন এলাকা ঘুরে অধিকাংশ রাস্তাঘাট ফাকাঁ দেখা গিয়েছে। শুধু মাত্র কয়েকটি পুলিশের টহল ভ্যান ও সাইরেন বাজিয়ে অ্যাম্বুলেন্স চলাচল করতে দেখা গেছে।

শহরের বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ সড়কে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের ব্যারিকেড দিয়ে টহল বসিয়ে যানবাহন ও যাত্রীদের জেরা করতে দেখা গেছে। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সাথে প্রথম শ্রেনীর ম্যাজিস্ট্রেট কে দায়িত্ব পালন করতে দেখা গিয়েছে। তাছাড়া রমজানের প্রথম দিন হওয়ার কারণে এমনিতেই মানুষ ঘরের বাইরে বের হননি।

শহরে কর্তব্যরত একজন পুলিশ কর্মকর্তার সঙ্গে আলাপকালে বলেন, তারা সাহরির পর থেকেই রাস্তায় টহলে নেমেছেন। ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কড়া নির্দেশ করোনার সংক্রমণরোধে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কাউকে রাস্তায় থাকতে দেয়া যাবে না। শুধু তাই নয়, পুলিশের বিশেষ পাস ছাড়া চলাচলে বাধা দিতে বলা হয়েছে।

বিডি প্রতিদিন/আল আমীন

এই বিভাগের আরও খবর