শিরোনাম
প্রকাশ : ১৯ এপ্রিল, ২০২১ ১৭:০০
প্রিন্ট করুন printer

আত্রাইয়ে বোরো ধানে ব্লাস্ট রোগের আক্রমণে দিশেহারা কৃষক

নওগাঁ প্রতিনিধি

আত্রাইয়ে বোরো ধানে ব্লাস্ট রোগের আক্রমণে দিশেহারা কৃষক
Google News

নওগাঁর আত্রাইয়ে ইরি-বোরো ধানে ব্লাস্ট রোগের আক্রমণে কৃষকরা দিশেহারা হয়ে পড়েছে। বিঘার পর বিঘা জমির ধান রাতারাতি মরে চিটা হয়ে যাচ্ছে। এ রোগ নিয়ন্ত্রণে কার্যকর কোনও পদক্ষেপ নিতে পারছেন না কৃষি বিভাগ। ফলে কৃষকদের মাঝে দেখা দিয়েছে চরম হতাশা।

জানা যায়, চলতি মৌসুমে উপজেলার প্রায় ২০ হাজার হেক্টর জমিতে ইরি-বোরো ধানের চাষ করা হয়েছে। এবারে চলতি রবি মৌসুমে উপজেলার ৮টি ইউনিয়নের বিভিন্ন মাঠের জিরাশাইল, ব্রি-২৯, ব্রি-২৮ ও কাটারিভোগ ধানের চাষ অধিকহারে চাষ করা হয়েছে। সেই সাথে এবারে নতুন জাতের ব্রি-৮১ ধানও ব্যাপকহারে চাষ করা হয়েছে। মাঠে মাঠে ধান পাকতে শুরু করেছে। এমন সময় ব্লাস্ট রোগে আক্রান্ত হওয়ায় কৃষক তাদের পাকা ধান ঘরে তোলা নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছে। এ বছর বোরো চাষের শুরু থেকেই আবহাওয়া অনুকূল থাকায় ইরি বোরা বাম্পার ফলনের সম্ভবনা থাকলেও বর্তমানে ব্লাস্ট রোগে আক্রান্ত হওয়ায় কৃষকদের মাঝে দেখা দিয়েছে হতাশার ছাপ। 

উপজেলার সাহেবগঞ্জ সরদারপাড়া গ্রামের কৃষক সেন্টু ৮ বিঘা জমিতে ব্রি-৮১ জাতের ধানে রোপন করেছেন। তার প্রায় সব জমিতেই ব্লাস্ট রোগ আক্রমণ করেছে। কোন কীটনাশক প্রয়োগ করে প্রতিকার পাওয়া যাচ্ছে না বলে তিনি জানিয়েছেন। 

আলহাজ্ব আবদার হোসেন বলেন, আমার ২ বিঘা জমির ব্রি-৮১ ধানে ব্লাস্ট রোগ ধরেছে। বিভিন্ন প্রকার কীটনাশক প্রয়োগ করেও প্রতিকার করা যাচ্ছে না।

উপজেলা কৃষি অফিসার কেএম কাউছার হোসেন বলেন, বোরো মৌসুমের শুরু থেকে আবহাওয়া ভালই ছিল। মাঝে কিছুটা প্রতিকূল আবহাওয়ার কারনে ধানে ব্লাস্ট রোগের দেখা দিয়েছে। এর প্রতিকারে আমরা যথাযথ ব্যবস্থা নিচ্ছি। সেই সাথে যেসব ধান ৮০ ভাগ পেকে গেছে ওই ধানগুলো দ্রুত কেটে নেয়ার জন্য কৃষকদের পরামর্শ দেয়া হচ্ছে।

 

বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ

এই বিভাগের আরও খবর