শিরোনাম
প্রকাশ : ২১ এপ্রিল, ২০২১ ১৯:৩৫
প্রিন্ট করুন printer

ফেনসিডিল বিক্রির অভিযোগে দুই পুলিশ সদস্য প্রত্যাহার, এএসপি বদলি

নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া

ফেনসিডিল বিক্রির অভিযোগে দুই পুলিশ সদস্য প্রত্যাহার, এএসপি বদলি
প্রতীকী ছবি

বগুড়ার মোকামতলায় যাত্রীবাহী বাসে অভিযান চালিয়ে উদ্ধারকৃত ২৪৮ বোতলের মধ্যে ৮৮ বোতল ফেনসিডিল বিক্রি করার অভিযোগ উঠেছে পুলিশের বিরুদ্ধে। অভিযোগ পাওয়ার পরে ঘটনার তদন্তে নেমেছেন বগুড়ার পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভুঞা।

তদন্ত শুরুর পরপরই বুধবার দুপুরে মোকামতলা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের দুই পুলিশ কর্মকর্তাকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। একইদিনে নতুন দায়িত্বে যাচ্ছেন সার্কেল এএসপি আরিফুল ইসলাম সিদ্দিকী। তিনি বরিশাল পুলিশ বিভাগে সংযুক্ত হবেন।

জানা গেছে, গত ৩ এপ্রিল রাতে শিবগঞ্জ সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আরিফুল ইসলাম সিদ্দিকীর নেতৃত্বে ঢাকা-রংপুর মহাসড়কে চেকপোস্ট বসিয়ে বিভিন্ন যানবাহন তল্লাশি শুরু করা হয়। এসময় মোকামতলা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রর পুলিশ সদস্যরা ঢাকাগামী একটি বাস থেকে সাইফুল ইসলাম নামে একজনকে ১৯৮ বোতল ও আরেক বাস থেকে নাজিম নামে এক ব্যক্তিকে ৫০ বোতল ফেনসিডিলসহ আটক করে।

এ ঘটনায় মোকামতলা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রর উপ-পরিদর্শক (এসআই) সুজাউদ্দৌলা বাদী হয়ে পরেরদিন ৪ এপ্রিল পৃথক দুইটি মামলা দায়ের করেন। প্রথমবাস থেকে উদ্ধারকৃত ১৯৮ বোতল ফেনসিডিলের স্থলে ১১০ বোতল জব্দ দেখিয়ে সাইফুলের নামে মামলা দেওয়া হয় বলে অভিযোগ ওঠে। উদ্ধার করা বাকি ৮৮ বোতল মোকামতলা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এক পুলিশ সদস্য গোপনে বিক্রি করে দেয়।

বগুড়া পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভুঞা জানান, শিবগঞ্জের মোকামতলা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ঘটনাটির বিষয়ে অভিযোগ পাওয়ার পর বিভাগীয় তদন্ত করা হচ্ছে। তদন্তে বের হয়ে আসবে কে দোষী। পরে সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত গৃহীত হবে।

তিনি আরো জানান, মোকামতলা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রর ইনচার্জ (পুলিশ পরিদর্শক) শাহীন উজ্জামানকে বগুড়া পুলিশ অফিসে এবং এসআই সুজাউদ্দৌলাকে পুলিশ লাইন্সে সংযুক্ত করা হয়েছে। আর নতুন দায়িত্বে যাচ্ছেন সার্কেল এএসপি আরিফুল ইসলাম সিদ্দিকী।

বিডি প্রতিদিন/এমআই

এই বিভাগের আরও খবর