শিরোনাম
প্রকাশ : ১২ মে, ২০২১ ১৯:১৪
আপডেট : ১২ মে, ২০২১ ১৯:৩২
প্রিন্ট করুন printer

চাঁদপুরে অশ্লীল ছবি ধারণকারী প্রতারক চক্রের ৬ সদস্য আটক

চাঁদপুর প্রতিনিধি:

চাঁদপুরে অশ্লীল ছবি ধারণকারী প্রতারক চক্রের ৬ সদস্য আটক
Google News

চাঁদপুর শহরের এসি ও ফ্রিজের ব্যবসায়ী মাইনুল ইসলামকে (৩৩) কৌশলে বাসায় নষ্ট ফ্রিজ মেরামতের জন্য ডেকে নিয়ে জোরপূর্বক অশ্লীল ছবি ধারণ করে নগদ অর্থ আদায় করার দায়ে ৪ নারীসহ ৬ প্রতারক সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ। 

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) স্নিগ্ধা সরকার এ তথ্য নিশ্চিত করেন। এসময় মডেল থানার ওসি মো. আব্দুর রশিদ, ওসি (তদন্ত) সুজন কান্তি বড়ুয়া, ওসি (অপারেশন) সানোয়ার হোসেন, (ইন্টিলিজেন্স) এনামুল হক উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে ভোর ৪টা থেকে ৩ ঘণ্টা আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে শহরের বিভিন্ন স্থান থেকে প্রতারক চক্রের ৬ সদস্যকে মডেল থানা পুলিশ আটক করেছে।

আটক প্রতারক সদস্যরা হলেন- চাঁদপুর শহরের ট্রাকঘাট জিহান পাটওয়ারীর স্ত্রী তাসলিমা আক্তার জেরিন (২০), চট্টগ্রাম জেলার রাঙ্গুনিয়া থানার বাঙ্গালখালী এলাকার সাদিয়া বেগম (২৭), ফরিদগঞ্জ উপজেলার সকদি রামপুর বেপারী বাড়ীর হাসিনা বেগম মুন্নি (৩৫), হাজীগঞ্জ রাজারগাঁও প্রধানিয়া বাড়ীর আয়েশা আক্তার নিপা (১৯), ফরিদগঞ্জ উপজেলার উত্তর গোবিন্দপুর ইউনিয়নের খান বাড়ীর কাজল খান (২২), একই এলাকার শোভান মিজি বাড়ীর মোস্তফা (৪৫)। এই ঘটনায় প্রতারণার শিকার মো. মাইনুল ইসলাম মডেল থানায় বাদী হয়ে আসামিদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। 

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার স্নিগ্ধা সরকার বলেন, অভিযোগকারীর বিষয়টি তদন্ত করে সত্যতা পাই। তাকে নষ্ট ফ্রিজ মেরামতের জন্য তাসলিমা আক্তার জেরিন ড্রিম হাউস নামের বাসায় নিয়ে মাইনুল ইসলামের অশ্লীল ভিডিও ধারণ করে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেয়। এই চক্রের সদস্যরা বিভিন্ন সময় পুরুষের মোবাইল নম্বর সংগ্রহ করে প্রেমের সম্পর্ক করে। শহরের বিভিন্ন বাসা ভাড়া করে লোকজনের অশ্লীল ছবি তুলে প্রতারণা করে টাকা আদায় করে। পরবর্তীতে রেখে দেয়া ছবিগুলো দিয়ে তারা আবারও টাকা আদায় করে থাকে।

এ বিষয়ে শিকার মো. মাইনুল ইসলাম বলেন, শুক্রবার সকালে জেরিনের অনুরোধে দুপুরে প্রতারক চক্রের অপর সদস্য সাদিয়ার আলিম পাড়াস্থ ড্রিম হাউজ নামে বাসায় নষ্ট ফ্রিজ মেরামত করার জন্য গেলে তাকে ঘরে ঢুকিয়ে গায়ের শার্ট ও কোমরের বেল্ট খুলে মোবাইলের মাধ্যমে ভিডিও ধারণ করে এবং ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে। যদি টাকা না দেয় তাহলে তার স্ত্রীর কাছে ভিডিও বার্তা পাঠাবে। পরে মাইনুল তার সাথে থাকা ১০ হাজার টাকা দিয়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে।

বিডি প্রতিদিন/ মজুমদার 

এই বিভাগের আরও খবর