শিরোনাম
প্রকাশ : ১২ জুন, ২০২১ ১৫:২২
প্রিন্ট করুন printer

আগুন জ্বালিয়ে, গাছের গুড়ি ফেলে কোম্পানীগঞ্জে সড়ক অবরোধ

নোয়াখালী প্রতিনিধি

আগুন জ্বালিয়ে, গাছের গুড়ি ফেলে কোম্পানীগঞ্জে সড়ক অবরোধ
Google News

সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদলের ওপর হামলার প্রতিবাদে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ ৪৮ ঘণ্টার অবরোধ শুরু হয়েছে। বাস্তায় আগুন জ্বালিয়ে, গাছের গুড়ি ফেলে যান চলাচলে বাধা সৃষ্টি করেন আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা। 

এর আগে আজ শনিবার (১২ জুন) দুপুর পৌনে ১২টার দিকে নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে লাইভে এসে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের মুখপাত্র ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ভাগনে মাহবুবুর রশীধ মঞ্জু উপজেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে আগামী ৪৮ ঘণ্টার এই অবরোধ ঘোষণা করেন।

এ সময় লাইভে তার সাথে আরও উপস্থিত ছিলেন কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা খিজির হায়াত খান, সেতুমন্ত্রীর ভাগিনা আওয়ামী লীগ নেতা ফখরুল ইসলাম রাহাত। এ সময় মঞ্জু লাইভে, সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ''ডুয়েল রোল প্লে'' করছেন বলেও অভিযোগ করেন। তিনি কাদের মির্জা ও তার সন্ত্রাসী বাহিনীর গ্রেফতার দাবি করেন। প্রসঙ্গত, বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আব্দুল কাদের মির্জার অনুসারীদের নেতৃত্বে বাদলের ওপর ওই হামলা চালানো হয় বলে অভিযোগ রয়েছে।  

বাদল সমর্থিতরা জানান, শনিবার সকালে মেয়র কাদের মির্জা তার ৩০-৩৫ জন অনুসারী নিয়ে বসুরহাট বাজারে মহড়া দিচ্ছিলেন। এসময় বাদল ও সাবেক ছাত্রনেতা হাসিব আহসান আলাল ঢাকার উদ্দেশ্যে যাচ্ছিলেন। তারা একটি ব্যাংকের সামনে দাঁড়ালে কাদের মির্জার নির্দেশে তার অনুসারীরা বাদল ও আলালের ওপর হামলা চালায়। এ সময় বাদলকে মারধর করলে তার কানের একটি অংশ ছিড়ে যায়। পরে একজন রিকশাচালক তাকে উদ্ধার করে প্রথমে থানায় নিয়ে যায়। পরে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য বাদলকে ঢাকায় পাঠানো হয়। এসময় হামলাকারীরা বাদলের ব্যক্তিগত গাড়িটিও ভাংচুর করে।

এ খবর ছড়িয়ে পড়লে বাদল সমর্থিত নেতা-কর্মীরা উপজেলার পেশকারহাট রাস্তার মাথা, চরএলাহী ও চর ফকিরা এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল ও সড়ক অবরোধ করেন।

এ বিষয়ে নোয়াখালীর পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আলমগীর হোসেন জানান, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর  রহমান বাদলের ওপর হামলার জড়িতদের বিরুদ্ধে পুলিশ আইনি ব্যবস্থা নিচ্ছে।


বিডি প্রতিদিন/ফারজানা

এই বিভাগের আরও খবর