শিরোনাম
প্রকাশ : ২০ জুন, ২০২১ ১৬:৩০
প্রিন্ট করুন printer

প্রধানমন্ত্রীর উপহার ঘর পেয়ে খুশি প্রতিবন্ধী দম্পতি

দিনাজপুর প্রতিনিধি

প্রধানমন্ত্রীর উপহার ঘর পেয়ে খুশি প্রতিবন্ধী দম্পতি
প্রতিবন্ধী তাছলিমা ও আকিরুল ইসলাম।
Google News

মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া উপহার বসতঘর পেয়ে খুশি দিনাজপুরের বোচাগঞ্জ উপজেলার প্রতিবন্ধী তাছলিমা (৪০) ও আকিরুল ইসলাম (৪৫)। তারাসহ দ্বিতীয় পর্যায়ে ১০০ জন ভূমি ও গৃহহীন পরিবার পাকা ঘর পাচ্ছেন।

তাছলিমা একজন দৃষ্টি প্রতিবন্ধী। জন্মের পরে টাইফয়েড জ্বরে আক্রান্ত হওয়ার পর দুই চোখ অন্ধ হয়ে যায় তার। স্বামীও জন্ম থেকেই শারীরিক প্রতিবন্ধী। স্বামী আকিরুল ইসলাম ভিক্ষা করে কোনো রকম সংসার চালান। স্বামীর কোনো ভিটেবাড়ি নেই। ৫ মেয়ে ২ ছেলেসহ মোট ৯ জন পরিবারের সদস্য নিয়ে ছোট একটি কুড়েঁঘরে থাকেন তাছলিমার পরিবার।

টানাপোড়েনের সংসারে জায়গা নিয়ে ঘর করবে এমন সামর্থ্যও নেই তাদের। সেই তাছলিমার দুঃখ মোচন হতে যাচ্ছে। মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর আওতায় ২ শতক জমিসহ তিনিসহ তার দুই মেয়েকে একটি করে পাকা ঘর দেওয়া হচ্ছে। শয়নকক্ষের পাশাপাশি থাকছে রান্নাঘর।

তাছলিমা বোচাগঞ্জ উপজেলার ছাতইল ইউপির তেতেরা গ্রামের বাসিন্দা। তাছলিমার মতো নতুন করে দ্বিতীয় ধাপে  ১০০ জন ভূমি ও গৃহহীন পরিবার পাচ্ছে আধাপাকা ঘর। মুজিববর্ষ উপলক্ষে বোচাগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে ভূমি ও গৃহহীনদের জন্য নির্মিত দৃষ্টিনন্দিত ঘরগুলো এখন শোভা পাচ্ছে।

উপকারভোগী তাছলিমা বলেন, আমাদের এই ছোট ঘরে থাকার খুব কষ্ট হচ্ছিল। একদিন ইউএনও সাহেব বাড়ি দেখে যাওয়ার পর ছবি, ভোটার কার্ড দেওয়া হয়। কোনোদিন ধারণা করিনি, প্রধানমন্ত্রী আমাকে বাড়ি দেবেন। প্রধানমন্ত্রী ঘর দেওয়ায় আমি খুশি হয়েছি।

বোচাগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার ছন্দা পাল বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষণা দিয়েছেন, দেশে একজন মানুষও গৃহহীন থাকবে না। প্রধানমন্ত্রীর উদ্যোগে প্রকৃত ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে খুঁজে বের করে জমিসহ ঘর করে দেওয়া হচ্ছে। প্রথম পর্যায়ে ৪৩০টি উপকারভোগী পরিবার ঘর পেয়েছে। দ্বিতীয় পর্যায়ে এবার ১০০ পরিবার ঘর পেয়েছে।

বিডি প্রতিদিন/এমআই

এই বিভাগের আরও খবর