শিরোনাম
প্রকাশ : ১৭ জুলাই, ২০২১ ১৮:৫৯
প্রিন্ট করুন printer

শ্বশুরের ওপর রাগ করে শ্যালককে হত্যা!

নিজস্ব প্রতিবেদক, যশোর

শ্বশুরের ওপর রাগ করে শ্যালককে হত্যা!
Google News

প্রায় এক বছর আগে যশোরের চৌগাছায় সংঘটিত স্কুলছাত্র এহতেশাম মাহমুদ রাতুল নামে এক স্কুলছাত্র হত্যাকাণ্ডের রহস্য শেষপর্যন্ত উদঘাটন করা সম্ভব হয়েছে বলে দাবি করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় নিহত রাতুলের ভগ্নীপতি শিশির আহমেদকে (১৯) আটক করা হয়েছে। শিশির ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর উপজেলার কাশিপুর গ্রামের হায়দার আলী মন্ডলের ছেলে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে শিশির হত্যাকাণ্ডের কথা স্বীকার করেছে।

শনিবার যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বিশেষ শাখা) জাহাঙ্গীর আলম সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন। তিনি জানান, ক্লুলেস এ হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদ্ধার করতে তথ্যপ্রযুক্তি ও সোর্সের সাহায্য নেওয়া হয়েছে। হত্যাকাণ্ডের এক বছর আগে মহেশপুর উপজেলার বাজিপোতা গ্রামের মহিউদ্দিনের মেয়ে মমতাজ মিমকে ভালোবেসে বিয়ে করে শিশির।

কিন্তু এ বিয়ে মিমের পরিবারের পক্ষ থেকে মেনে নেওয়া হয়নি। মিমের বাবা এ ব্যাপারে একদিন শিশিরকে ডেকে বকাঝকা ও অপদস্থ করেন। এর প্রতিশোধ নিতেই শিশির তার শ্যালক স্কুলছাত্র রাতুলকে হত্যার পরিকল্পনা করে। গত বছর ১১ জুলাই শিশির তার স্ত্রীর মোবাইল ফোন থেকে রিং করে রাতুলকে যশোরের চৌগাছায় ডেকে নেয়।

এরপর বেড়ানোর কথা বলে তাকে চৌগাছার লস্করপুর শ্মশান মাঠের একটি পাটক্ষেতে নিয়ে কোমল পানীয়ের সাথে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে দেয়। পরে তার নাক-মুখে স্কচটেপ লাগিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে শিশির। বাড়ি ফিরে রাতুলের মোবাইল ফোনটি লুকিয়ে রেখে বাবার ট্রাকে করে চট্টগ্রামের পতেঙ্গায় পালিয়ে যায় শিশির। শিশিরের বাবা একজন ট্রাকচালক। পরে সোর্সের মাধ্যমে খবর পেয়ে শিশিরকে পতেঙ্গা থেকে আটক করা হয়। তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী রাতুলের মোবাইলটিও উদ্ধার করা হয়েছে।

এ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই শামীম হোসেন জানান, ঘটনার সাথে আর কেউ জড়িত ছিল কি না তা জানতে শিশিরকে আদালতে হাজির করে সাত দিনের রিমান্ডের আবেদন করা হয়েছে।

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর

এই বিভাগের আরও খবর