২৪ জুলাই, ২০২১ ১৮:৫৬

প্রেমিকের হাত ধরে উধাও দুই সন্তানের জননী, এরপর যা ঘটল

বিশ্বনাথ (সিলেট) প্রতিনিধি

প্রেমিকের হাত ধরে উধাও দুই সন্তানের জননী, এরপর যা ঘটল

পালিয়ে যাবার ৯দিনের মাথায় প্রেমিকসহ তাকে পাকড়াও করে, পাঠানো হয় জেলহাজতে

মোবাইল ফোনে পরিচয়। একপর্যায়ে এ পরিচয় রূপ নেয় প্রেমে। দীর্ঘদিন ধরে চলছিল মন দেওয়া-নেওয়া। পরে ঘর বাঁধার রঙিন স্বপ্নে বিভোর হয়ে, প্রেমিকের হাত ধরে অজানার উদ্দেশ্যে পাড়ি দেন দুই সন্তানের জননী প্রেমিকা। কিন্তু সে স্বপ্নে বাদ সাধে বেরসিক পুলিশ। পালিয়ে যাবার ৯দিনের মাথায় প্রেমিকসহ তাকে পাকড়াও করে, পাঠানো হয় জেলহাজতে। ঘটনা সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার খাজান্সি ইউনিয়নের।

সূত্র জানায়, গত ১১ জুলাই ভোরে উপজেলার খাজান্সি ইউনিয়নের তেলিকোনা গ্রামের দুই সন্তানের এক জননী (২৮), তার প্রেমিক এক সন্তানের বাবা সোহেল রানার (২৮) হাত ধরে ঘর ছাড়েন। হোটেলবয় সোহেল রানা মানিকগঞ্জ জেলার সদর থানার খালিন্দা গ্রামের মৃত আবদুল খালেকের ছেলে। 

এ ঘটনায় স্ত্রী নিখোঁজ হয়েছেন মর্মে বিশ্বনাথ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন ওই নারীর স্বামী।  

এরপর তদন্তে নেমে বিশ্বনাথ থানা পুলিশের এসআই অলক দাস ১৯ জুলাই সন্ধ্যায় প্রেমিক সোহেল রানার বসতবাড়ি থেকে তাকেসহ প্রেমিকাকে আটক করেন। উদ্ধার করা হয় আনুমানিক প্রায় ৯ ভরি স্বর্ণালংকার। পরদিন ২০ জুলাই ৫৪ ধারায় সিলেট আদালতে পাঠালে বিজ্ঞ আদালত তাদের জেলহাজতে পাঠান। 

বিশ্বনাথ পুলিশ স্টেশনের অফিসার ইনচার্জ গাজী আতাউর রহমান ‘বাংলাদেশ প্রতিদিন’কে বলেন, ওই নারী ইচ্ছা করেই তার প্রেমিকের সঙ্গে পালিয়ে যান। প্রেমিকসহ তাকে উদ্ধার করে কোর্টে পাঠানো হয়েছে। তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিডি প্রতিদিন/জুনাইদ আহমেদ 

এই বিভাগের আরও খবর