২৩ আগস্ট, ২০২১ ১৫:২৪

অবশেষে শিকল বন্দী শংকরীর পাশে প্রশাসন

নেত্রকোনা প্রতিনিধি

অবশেষে শিকল বন্দী শংকরীর পাশে প্রশাসন

মানসিক ভারসাম্যহীনতার কারণে প্রায় ২০ বছর শিকলবন্দী অবস্থায় একটি পরিত্যক্ত টয়লেটে থাকতে হয়েছে শংকরী গুহকে। অবশেষে ৪৫ বছর বয়সী শংকরীর পাশে দাঁড়িয়েছে প্রশাসন। বিষয়টি স্থানীয় প্রশাসনের নজরে আসলে তারা প্রাথমিকভাবে ঘরের জন্য টিন, ঘরের জন্য ৬ হাজার এবং চিকিৎসা বাবদ নগদ ৫ হাজার টাকা ও দুই বস্তা চাল দিয়ে আসেন। রবিবার বিকালে উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাজিব উল আহসান নিজে গিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে সহায়তা দিয়ে আসেন। 

প্রাথমিকভাবে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডাক্তার তানজিরুল ইসলাম রায়হান নেত্রকোনার দুর্গাপুরের বাসিন্দা শংকরী চিকিৎসার বিষয়ে সার্বিক সহযোগিতা ও পরামর্শ দেয়ার আশ্বাস প্রদান করেন।

স্থানীয়রা জানান, উপজেলার পৌর শহরের আমলাপাড়া স্বর্গীয় শম্ভুলাল গুহের তৃতীয় সন্তান শংকরী। তার বড় দুই বোন এবং ছোট একটি ভাই রয়েছে। জানা যায়, শংকরী শহরের বিরিশিরি মিশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে পড়ালেখা করেছেন। ২০০১ সালে হঠাৎ করে একদিন নাকের সমস্যা দেখা দিলে কয়েকদিনের ব্যবধানে তা রূপ নেয় টিউমারে। চিকিৎসার পর হঠাৎ করে অস্বাভাবিকভাবে আচরণ পরিবর্তন হওয়া শুরু করে। একপর্যায়ে পুরোপুরি মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। সেখান থেকেই শুরু হয় তার বন্দিজীবন। পায়ে কখনো মোটা রশি কিংবা শিকল দিয়ে বেঁধে আটকে রেখেছেন স্বজনরা। 


বিডি প্রতিদিন/ফারজানা

এই বিভাগের আরও খবর