৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ১৮:০৫

বরিশালে ভাসমান কৃষি প্রকল্পের দুই দিনব্যাপী কর্মশালা শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল

বরিশালে ভাসমান কৃষি প্রকল্পের দুই দিনব্যাপী কর্মশালা শুরু

বরিশালে ‘ভাসমান কৃষি বিষয়ক গবেষণা ও সম্প্রসারণ পর্যালোচনা এবং কর্মসূচি প্রণয়ন’ শীর্ষক দুই দিনব্যাপী কর্মশালা শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার জেলার বাবুগঞ্জের রহমতপুর আঞ্চলিক কৃষি গবেষণা কেন্দ্রের (আরএআরএস) সেমিনার কক্ষে এই কর্মশালা শুরু হয়। 

প্রধান অতিথি হিসেবে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কর্মশালার উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের (বিএআরআই) মহাপরিচালক ড. মো. নাজিরুল ইসলাম। 

‘ভাসমান বেডে সবজি ও মসলা চাষ গবেষণা, সম্প্রসারণ ও জনপ্রিয়করণ প্রকল্প আয়োজিত এ কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন আঞ্চলিক কৃষি গবেষনা কেন্দ্রের মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা মো. রফি উদ্দিন। 

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিএআরআই’র পরিচালক (গবেষণা) ড. মো. তারিকুল ইসলাম, বিএআরআই’র পরিচালক (পরিকল্পনা ও মূল্যায়ন) ড. রিনা রানী সাহা, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর (ডিএই) ফরিদপুর অঞ্চলের অতিরিক্ত পরিচালক মনোজিত কুমার মল্লিক এবং ডিএই বরিশাল অঞ্চলের অতিরিক্ত পরিচালক মো. তাওফিকুল আলম। 

আরও উপস্থিত ছিলেন প্রকল্প পরিচালক ড. মো. মোস্তাফিজুর রহমান তালুকদার, ড. মো. মাহবুবুর রহমান, বিএআরআই’র সদর দপ্তরের মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. দেলোয়ার আহম্মেদ চৌধুরী, সরেজমিন গবেষণা বিভাগ পটুয়াখালীর প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মো. সহিদুল ইসলাম খান, সরেজমিন গবেষণা বিভাগ সিলেটের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মাহমুদুল ইসলাম নজরুল এবং আরএআরএস বরিশালের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মো. আলিমুর রহমান প্রমুখ। দুই দিনব্যাপী কর্মশালায় কৃষি সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ৬০ জন কর্মকর্তা অংশগ্রহণ করছেন। 

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বলেন, মানুষ বাড়ছে। কমছে জমির পরিমাণ। পরিবর্তিত হচ্ছে জলবায়ু। এসব মোকাবেলায় ফসলের উৎপাদন বাড়াতে হবে। আর এ জন্য প্রয়োজন আধুনিক চাষাবাদের পাশাপাশি ফসলের নিবিড়তা বাড়ানো। সে সাথে দরকার জলমগ্ন এলাকা আবাদের আওতায় আনা। এগুলো অবশ্যই পরিকল্পনা অনুযায়ী হওয়া প্রয়োজন। তাহলে ২০৩০ সালের মধ্যে উন্নত দেশে পরিণত হওয়া সম্ভব। 

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর