২৩ নভেম্বর, ২০২১ ১৮:১৯

পরকীয়ার জেরে ব্যবসায়ী খুন, গ্রেফতার ৩

গাজীপুর প্রতিনিধি:

পরকীয়ার জেরে ব্যবসায়ী খুন, গ্রেফতার ৩

গাজীপুরের কাশিমপুরে বাড়িওয়ালার স্ত্রীর সঙ্গে পরকীয়ার জেরে গলা ও অন্ডকোষ কেটে এক ঝুট ব্যবসায়ীকে খুন করেছে বাড়ির মালিক ও তার সহযোগীরা। চাঞ্চল্যকর এ খুনের ঘটনার প্রায় ছয় বছর পর রহস্য উম্মোচন করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। ক্লুলেস এ খুনের ঘটনায় প্রত্যক্ষভাবে জড়িত তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মঙ্গলবার গাজীপুর পিবিআই’র পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাকছুদের রহমান এ তথ্য জানিয়েছেন। 

গ্রেফতারকৃতরা হলো- গাজীপুরের কাশিমপুর থানাধীন সুরাবাড়ি এলাকার মৃত মজিবুর রহমানের ছেলে সাইদুর রহমান শাহীন সরকার (৫৮), একই এলাকার দেওয়ান মো: জহিরুল ইসলামের ছেলে মোমিরুল দেওয়ান (৪৮) ও হাশেম দেওয়ানের ছেলে শরীফ দেওয়ান (৩৩)। তারা সবাই ঝুট ব্যবসায়ী।

পিবিআই’র ওই কর্মকর্তা জানান, গাজীপুরের জয়দেবপুর থানার (বর্তমানে কাশিমপুর) সুরাবাড়ি এলাকার উসমান মোক্তারের বাড়িতে ভাড়া থেকে কালিয়াকৈরের উত্তর গজারিয়া এলাকাস্থিত স্ক্যানডেক্স টেক্সটাইল ইন্ডাষ্ট্রিজ লি: ফ্যাক্টরীতে ডাইং কিউসি পদে চাকুরি করতেন পাবনার চাটমোহর থানাধীন কুয়াবাসী এলাকার মাওলানা আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে আরিফুল ইসলাম (৩৫)। প্রায় চার বছর ওই বাড়িতে থাকার পর তিনি ভাওয়াল মির্জাপুর এলাকায় বাসা ভাড়া নেন। মির্জাপুরে ভাড়া বাসায় থাকলেও তিনি প্রায়শ: উসমান মোক্তারের বাসায় আসা যাওয়া করতেন। চাকুরির পাশাপাশি তিনি ঝুটের ব্যবসা করতেন। তিনি সুরাবাড়ি এলাকায় কিছু জমি ক্রয় করলেও বিরোধের কারণে ওই জমির দখল পান নি। তার স্ত্রী একমাত্র সন্তানকে নিয়ে পাবনা থাকেন। 

পুলিশ সুপার জানান, আরিফুল খুনের ঘটনায় অজ্ঞাতদের আসামিদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেন নিহতের ছোট ভাই। গাজীপুর জেলা ও গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ দীর্ঘ প্রায় ৩ বছর ১ মাস ১৪ দিন তদন্ত শেষে রহস্য উদ্ঘাটন করতে না পারায় আদালতে মামলাটির চূড়ান্ত রিপোর্ট দাখিল করে। আদালত স্বপ্রণোদিত হয়ে মামলাটি পুনঃরায় তদন্তের জন্য গাজীপুর জেলা পিবিআই’কে নির্দেশ দেন। চাঞ্চল্যকর ও ক্লুলেস এ খুনের মামলার তদন্তের দায়িত্ব পেয়ে পিবিআই’র তদন্ত কর্মকর্তা তথ্য প্রমাণের ভিত্তিতে এ ঘটনায় জড়িত ওই তিনজনকে সোমবার ও মঙ্গলবার ভোররাতে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে সাইদুর রহমান শাহীন সরকার ও শরীফ দেওয়ান আদালতে স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি প্রদান করে। অপর গ্রেফতারকৃত মোমিরুলকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। আরিফুল খুনের ঘটনায় ৮ জন জড়িত থাকার কথা জানিয়েছে গ্রেফতারকৃতরা। এর প্রেক্ষিতে ক্লুলেস ও চাঞ্চল্যকর এ হত্যার প্রায় ৬ বছর পর রহস্য উন্মোচন হয়েছে।   

বিডি প্রতিদিন/এএম

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর