২৪ মে, ২০২২ ২২:০৪

ভিডিও ছড়ানোর ভয় দেখিয়ে কিশোরীকে দেড় মাস আটকে রেখে ধর্ষণ

কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি

ভিডিও ছড়ানোর ভয় দেখিয়ে কিশোরীকে দেড় মাস আটকে রেখে ধর্ষণ

প্রতীকী ছবি

গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার সফিপুর এলাকায় গত দেড় মাস ধরে আটকে রেখে এক কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ অভিযোগে পুলিশ সোমবার রাতে সাইফুল ইসলাম (৪০) নামের এক যুবককে গ্রেফতার করেছেন। 

কিশোরীর অভিযোগ, গ্রেফতার সাইফুল ইসলাম ধর্ষণের অশ্লীল ভিডিও মুঠোফোনে ধারণ করে। সেই ভিডিও ফেইসবুকে প্রচার করে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে গত দেড় মাস আটকে রেখে তাকে ধর্ষণ করে।

গ্রেফতারকৃত সাইফুল ইসলাম পাবনার সাথিয়া উপজেলার চকমধুপুর গ্রামের জনাব আলী সরকারের ছেলে। 

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সাইফুল ইসলাম কালিয়াকৈর উপজেলার আহম্মদ নগর এলাকায় একটি ভবনের দ্বিতীয় তলার একটি ফ্লাটে ভাড়া থাকতেন। গত দুই মাস আগে তার স্ত্রী ও তিন সন্তানকে তাদের গ্রামের বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়। এই সুযোগে ওই কিশোরীকে চাকরি দেওয়ার কথা বলে প্রায় দেড় মাস আগে তার ভাড়া বাসায় ডেকে নিয়ে আসে। পরে ওই ফ্লাটের বাসায় কিশোরীকে জোড়পূর্বক ধর্ষণ ও ধর্ষণের দৃশ্য তার মুঠোফোনে ভিডিও ধারণ করে। ওই সময় কিশোরী পালিয়ে যেতে চাইলে তাকে ভিডিও দেখিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইজবুকে ছড়িয়ে দেওয়ার ভয়ভীতি দেখিয়ে ঘরে আটকিয়ে রেখে টানা দেড়মাস ধরে ধর্ষণ করে আসছে। সোমবার দুপুরে হঠাৎ ফ্লাটের মেইন দরজা খোলা দেখতে পেয়ে ওই কিশোরী দৌঁড়ে বাহিরে গিয়ে আশপাশের লোকজনদের বিষয়টি জানায়। খবর পেয়ে পুলিশ ওই কিশোরিকে উদ্ধার সাইফুল ইসলামকে গ্রেফতার করেন। 

মৌচাক পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক (এসআই) হাসান উদ দৌলাহ জানান,  এ ঘটনায় কিশোরী বাদী হয়ে একটি মামলা দারে করেছেন। গ্রেফতারকৃত আসামি সাইফুল ইসলামকে গাজীপুর জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। কিশোরীকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য গাজীপুর তাজউদ্দিন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।


বিডি প্রতিদিন/হিমেল

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর