৩১ মে, ২০২২ ২০:৪৭

পাঠদান বন্ধ রেখে স্কুল মাঠে আওয়ামী লীগের সম্মেলন

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি

পাঠদান বন্ধ রেখে স্কুল মাঠে আওয়ামী লীগের সম্মেলন

লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে পাঠদান বন্ধ রেখে স্কুল মাঠে উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে উপজেলার মার্চেন্টস একাডেমি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে দিনব্যাপী এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এতে করে একদিনের শিক্ষা কার্যক্রম বঞ্চিত হয়েছেন ওই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। যার কারণে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন অভিভাবকরা। এদিকে অনুমতিহীনভাবে পাঠদান বন্ধ রেখে সমাবেশের বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানালেন জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুল মতিন।  

জানা যায়, উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয় মঙ্গলবার। সম্মেলনকে ঘিরে সকাল নয়টা থেকে জেলার বিভিন্ন উপজেলা ও ইউনিয়ন থেকে বিপুল সংখ্যক নেতা-কর্মী বিদ্যালয় মাঠে সমবেত হন। সম্মেলনে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুয়ালি বক্তব্য দেন। 

সম্মেলনে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মামুনুর রশিদের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী, যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক হারুনুর রশিদ, লক্ষ্মীপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য শাহজাহান কামাল, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম ফারুক পিংকু, সাধারণ সম্পাদক নুরউদ্দিন চৌধুরী নয়ন এমপি, আওয়ামী লীগ নেতা সফিকুল ইসলাম প্রমুখ।

সম্মেলনে রায়পুর পৌর এলাকায় অতিথিদের স্বাগত জানিয়ে নেতা-কর্মীরা অসংখ্য তোরণ, ব্যানার-ফেস্টুন ও প্রদর্শনী বোর্ড স্থাপন করেন। এগুলোর বেশির ভাগই সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থীদের। নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক অভিভাবক অভিযোগ করে বলেন, জেলা পরিষদ মিলনায়তন বা শহরের অন্য কোনো মিলনায়তনে সম্মেলন হলে স্কুল বন্ধ রাখার প্রয়োজন হতো না। শিক্ষার্থীরাও পাঠদান বঞ্চিত হতো না। প্রায় সময়ই বিদ্যালয়ের মাঠে বিভিন্ন সময় রাজনৈতিক দলের সভা-সমাবেশের কারণে শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার সমস্যা হয়। 

কেউ কেউ বলেন, সম্মেলনকে কেন্দ্র করে এক সপ্তাহ ধরে বিদ্যালয় মাঠে বিশাল প্যান্ডেল করে মঞ্চ করা হয়। এ কারণে সপ্তাহব্যাপীই শিক্ষার্থীদের পড়ালেখা বিঘ্নিত হয়েছে। রায়পুর মার্চেন্টস একাডেমির (উচ্চবিদ্যালয়) ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মো. হুমায়ুন কবির বলেন, সম্মেলনের কারণে বিদ্যালয় ছুটি দেওয়া হয়েছে। শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার কথা ভেবে বিদ্যালয়ের সংরক্ষিত ছুটি দিয়েছেন বলে জানান তিনি। তবে শিক্ষকরা বিদ্যালয়ে উপস্থিত ছিলেন বলে জানান তিনি।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম ফারুক পিঙ্কু বলেন, বিষয়টি নিয়ে পরে কথা বলবো। এদিকে জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুল মতিন বলেন, শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ রেখে রাজনৈতিক সভা-সমাবেশের বিষয়ে সরকারের নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। তবে কী করে পাঠদান বন্ধ রেখে এ সম্মেলন করা হয়েছে তা খতিয়ে দেখা হবে।

এদিকে আগামী ১ জুন বুধবারও জেলার চন্দ্রগঞ্জ হাজিরপাড়া হামিদিয়া উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে থানা আওয়ামী লীগের সম্মেলন হওয়ার কথা রয়েছে বলে জানা গেছে। 

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর

সর্বশেষ খবর