Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ৯ নভেম্বর, ২০১৯ ১১:৪৪

মোংলা বন্দরে মহাবিপদ সংকেত, সুন্দরবন ত্যাগ পর্যটকদের

অনলাইন ডেস্ক

মোংলা বন্দরে মহাবিপদ সংকেত, সুন্দরবন ত্যাগ পর্যটকদের

বঙ্গোপসাগরের ঘূর্ণিঝড় বুলবুল উপকূলের দিকে ধেয়ে আসার আগে শুক্রবার রাতেই সভা করে বন্ধ রাখা হয়েছে বাগেরহাটের মোংলা বন্দরের কার্যক্রম। আজ শনিবার এই বন্দরকে ১০ নম্বর মহাবিপদ সঙ্কেত দেখাতে বলা হয়েছে। ফলে মোংলা বন্দরে অবস্থানরত দেশি-বিদেশি ১৪ জাহাজকে নিরাপদে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। 

এদিকে, ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে শনিবার সকাল থেকে বৃষ্টির তীব্রতা বাড়তে শুরু করেছে। শুক্রবার থেকে গুঁড়িগুঁড়ি বৃষ্টি হলেও শনিবার বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভারি বৃষ্টিপাত হচ্ছে। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া মানুষ বাড়ির বাইরে যাচ্ছে না।

অপরদিকে, ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের কারণে সৃষ্ট দুর্যোগে উদ্ধার তৎপরতা চালাতে নৌবাহিনীর চারটি জাহাজ প্রস্তুত রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছেন খুলনা নৌবাহিনীর কমান্ডার রিয়াল অ্যাডমিরাল আবু মুছা। একই সঙ্গে কোস্টগার্ডও সুন্দরবন উপকূলের ১০টি পয়েন্টে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করছে। ইতোমধ্যে দুবলার চরে রাস মেলায় থাকা পর্যটকদের ফিরিয়ে আনা হয়েছে।

এছাড়া উদ্ভূত পরিস্থিতি এড়াতে শুক্রবার রাতেই উপকূলীয় এলাকার জনসাধারণকে মাইকিং করে আশ্রয় কেন্দ্রে আসার আহ্বান জানানো হয়েছে। তবে সকাল পর্যন্ত কেউই আশ্রয় কেন্দ্র আসেননি। বিশেষ করে শরণখোলা ও মোংলার উপজেলা নির্বাহী অফিসারদের দ্র্রুত সময়ের মধ্যে উপকূলের মানুষকে আশ্রয়কেন্দ্রে আনার ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

সুন্দরবন পূর্ব বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও) মো. মাহমুদুল হাসান জানান, ঝড় ও জলোচ্ছ্বাস মোকাবেলায় সুন্দরবনের সকল কর্মকর্তা ও বনরক্ষীদের নিরাপদে থেকে বন্যপ্রাণী রক্ষায় কাজ করতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ঘূর্ণিঝড়ের কারণে রাস পূর্ণিমাকে সামনে রেখে ১০ নভেম্বর থেকে সুন্দরবনের আলোরকোলে শুরু হতে যাওয়া ৩ দিনব্যাপী রাস উৎসব বন্ধ ঘোষণা করে সেখানে থাকা পর্যটকদের কোস্টগার্ডের সহায়তায় ফিরিয়ে আনা হয়েছে। 

মাইকিং করে পর্যটকদের সুন্দরবনে ঢুকতে নিষেধ করা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

বিডি প্রতিদিন/এনায়েত করিম


আপনার মন্তব্য