সোমবার, ১০ জুন, ২০২৪ ০০:০০ টা

মোদির শপথ গ্রহণ

নতুন উচ্চতায় উঠুক ঢাকা-দিল্লি বন্ধুত্ব

টানা তৃতীয় মেয়াদে ভারতের প্রধানমন্ত্রী পদে শপথ নিয়েছেন নরেন্দ্র মোদি। জওহর লাল নেহরুর পর নরেন্দ্র মোদি টানা তৃতীয়বারের মতো বিশ্বের বৃহত্তম গণতান্ত্রিক দেশ ভারতের প্রধানমন্ত্রী পদে অধিষ্ঠিত হলেন। শনিবার বিজেপির নেতৃত্বাধীন জাতীয় গণতান্ত্রিক জোট-এনডিএর বৈঠকে মোদির নেতৃত্বেই মন্ত্রিসভা গঠনের সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। গতকাল সন্ধ্যায় রাষ্ট্রপতি ভবনে জমকালো অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও তার মন্ত্রিসভার সদস্যরা শপথ নেন। শপথ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বন্ধুদেশ বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা-সহ শ্রীলঙ্কা, নেপাল, মালদ্বীপ ও ভুটানের সরকার ও রাষ্ট্রপ্রধান। দক্ষিণ এশিয়ায় পাঁচটি দেশের সরকার ও রাষ্ট্রপ্রধানকে আমন্ত্রণ জানানো হয়। বাদ রাখা হয় পাকিস্তান ও আফগানিস্তানকে। সিসিলিসের ভাইস প্রেসিডেন্ট ও মরিশাসের প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতিও ছিল তাৎপর্যপূর্ণ ঘটনা। ভারত যে দক্ষিণ এশিয়ায় নিজস্ব বলয় সৃষ্টির পাশাপাশি ভারত মহাসাগরীয় দ্বীপ দেশগুলোর সঙ্গেও বহুমাত্রিক সম্পর্কে আগ্রহী হয়ে উঠেছে শপথ অনুষ্ঠানে কিছু দেশকে গুরুত্ব দেওয়ার ঘটনা তারই প্রমাণ। প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নরেন্দ্র মোদির শপথ নেওয়ার পাশাপাশি ৯৯ আসনের অধিকারী কংগ্রেস বিরোধী দলের নেতা হিসেবে নেহরু পরিবারের উত্তরসূরি রাহুল গান্ধীকে নির্বাচিত করেছে। গত দুটি লোকসভায় বিরোধী দলের নেতা হিসেবে কেউ দায়িত্ব পালন করতে পারেননি কোনো বিরোধী দল ১০ শতাংশ আসন না পাওয়ায়। ভারতের সদ্য সমাপ্ত নির্বাচনে বিজেপি নেতৃত্বাধীন জোট এনডিএ জয়লাভ করলেও কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন ইন্ডিয়া জোটের উত্থান ছিল চোখে পড়ার মতো। রামমন্দির বটিকা গিলিয়ে মোহবিষ্ট করার চেষ্টা সফল হয়নি ভারতীয়দের গণতন্ত্র ও ধর্মনিরপেক্ষতাবাদী চেতনার কারণে। মুক্তিযুদ্ধের মিত্র দেশ ভারত। সব পাল্টানো গেলেও প্রতিবেশী পাল্টানো যায় না। দুই দেশের মধ্যে নানা ক্ষেত্রে সমস্যা থাকলেও তা কখনো বন্ধুত্বের চেতনাকে ক্ষুণ্ণ করেনি। আমাদের বিশ্বাস- মোদির তৃতীয় মেয়াদে ঢাকা-দিল্লির ঐতিহ্যবাহী সম্পর্ক আরও নতুন উচ্চতায় উঠবে।

সর্বশেষ খবর