শিরোনাম
প্রকাশ : ২৬ নভেম্বর, ২০২০ ১১:০৬
প্রিন্ট করুন printer

কালের সাক্ষী জমিদার ইন্দ্রচাঁদ বোথরার কাচারিবাড়ি

রিয়াজুল ইসলাম, দিনাজপুর

কালের সাক্ষী জমিদার ইন্দ্রচাঁদ বোথরার কাচারিবাড়ি

দেড় শ বছরের পুরনো জমিদার ইন্দ্রচাঁদ বোথরার কাচারিবাড়ির নানা কারুকাজ করা সেই ভবনটি শ্রীহীন অবস্থায় কালের সাক্ষী হয়ে দাঁড়িয়ে রয়েছে। অথচ ভবনটি সংস্কার করা হলে ঐতিহ্যের নিদর্শন হয়ে থাকত।

জানা যায়, ১৮৮৬ সালে নির্মিত এই ভবনটিতে দুটি বড় বাঘের ছবি থাকায় ‘বাঘ মার্কা’ বাড়ি বলে সবাই ডাকত। ৭ কক্ষবিশিষ্ট দ্বিতল ভবন, যার দৈর্ঘ্য ২০০ ফুট ও প্রস্থ ৩০ ফুট। চুন সুরকি দিয়ে তৈরি ভবনের প্রতিটি দেয়াল ৩০ ইঞ্চি চওড়া। পুরো বাড়ির জমি ১ একর ৭৩ শতাংশ। তবে কিছু জমি বেদখল হয়ে গেছে। স্থানীয়রা জানায়, দীর্ঘদিন সংস্কার না করায় ভবনটি ব্যবহার অনুপোযোগী হয়ে পড়েছে। বর্ষাকালে ভবনটির ছাদ দিয়ে পানি পড়ে। দেয়ালের প্লাস্টার খসে পড়ছে। ফুলবাড়ীর মেহেদী হাসানসহ প্রবীণ শিক্ষা অনুরাগীরা জানান, প্রজা সাধারণের যাতায়াতের সুবিধার্থে ছোট যমুনা নদীর পাড়ে বাড়িটি জমিদার ইন্দ্রচাঁদ বোথরার নির্মাণ করেছিলেন। ১৯৪৭ সালে দেশ বিভক্তের পর জমিদার প্রথা বিলুপ্তির হলে, এই কাচারি বাড়িটি ২০১০ সাল পর্যন্ত ফুলবাড়ী উপজেলা ভূমি অফিস হিসেবে ব্যবহার হয়ে আসছিল। কিন্তু ভবনটির ছাদ দিয়ে পানি পড়ায় কর্তৃপক্ষে এই ঐতিহ্যবাহী ভবনটি সংস্কার না করে পিছনে নতুন ভবন নির্মাণ করে। সেখানে উপজেলা ভূমি অফিস স্থানান্তর হলে এ ভবনটির কেউ দেখভাল না করায় ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে এসে দাঁড়ায়।


আপনার মন্তব্য