শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৬ জুন, ২০২১ ২৩:১৪

মহাসংকটে উচ্চশিক্ষায় ভর্তিচ্ছুরা

পরীক্ষার অপেক্ষায় এক বছর পার

আকতারুজ্জামান

Google News

মহামারীর কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় সবচেয়ে বেশি সংকটে পড়েছেন উচ্চশিক্ষায় ভর্তির অপেক্ষায় থাকা শিক্ষার্থীরা। এই শিক্ষার্থীদের গত বছরের নভেম্বর-ডিসেম্বরের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি প্রক্রিয়া শেষ করে অনার্স প্রথম বর্ষের ক্লাসে বসার কথা ছিল। কিন্তু করোনা সংক্রমণের কারণে এখনো ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষাই দিতে পারেননি। কোনো কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির আবেদন প্রক্রিয়াই শুরু হয়নি। বিপুল সংখ্যক ভর্তিচ্ছুর সময় কাটছে ভর্তি পরীক্ষার প্রস্তুতিতেই। এই প্রস্তুতি নিতে নিতে ইতিমধ্যে শিক্ষাজীবন থেকে এক বছর শেষ হয়ে গেছে তাদের।

এদিকে, এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষা ইতিমধ্যে অনুষ্ঠিত হলেও প্রায় সব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষাই আটকে গেছে। আটকে গেছে ডেন্টাল কলেজে ভর্তিও।

বুয়েটে ভর্তি পরীক্ষার অপেক্ষায় থাকা এক শিক্ষার্থীর অভিভাবক রাকিবুল ইসলাম জানান, দেশসেরা মেধাবীরা তাকিয়ে থাকে মেডিকেল ও বুয়েট ভর্তি পরীক্ষার দিকে। গত ২ এপ্রিল এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষা নেওয়া হয়। কিন্তু বুয়েটের ভর্তি পরীক্ষা নেওয়া হয়নি। প্রাক নির্বাচনী ও চূড়ান্ত পরীক্ষা পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে। সর্বশেষ ঘোষণা অনুযায়ী, বুয়েটের প্রাক-নির্বাচনী পরীক্ষা ৩০ জুন ও ১ জুলাই অনুষ্ঠিত হবে। এ ছাড়া চূড়ান্ত ভর্তি পরীক্ষা ১০ জুলাই অনুষ্ঠিত হবে। এই অভিভাবক বলেন, ভর্তি পরীক্ষার অপেক্ষায় থাকতে শিক্ষার্থীরা ক্লান্ত হয়ে পড়েছে। আমরা চাই, আর বিলম্ব না করে স্বাস্থ্যবিধি মেনে নির্ধারিত সময়ে এই পরীক্ষার আয়োজন করা হোক। ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে ২০টি সাধারণ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের পূর্ব নির্ধারিত গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা শুরু হওয়ার কথা ছিল ১৯ জুন। কিন্তু করোনা পরিস্থিতিতে এ পরীক্ষা পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে। কবে এসব বিশ্ববিদ্যালয়ে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে বলতে পারছে না কেউ। শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বলেন, ভর্তি পরীক্ষার সুনির্দিষ্ট তারিখ পরে জানানো হবে। পেছানো হয়েছে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে বিডিএস কোর্সে সরকারি-বেসরকারি ডেন্টাল কলেজ ও মেডিকেল কলেজ ডেন্টাল ইউনিটের পরীক্ষাও। গত ১১ জুন এই পরীক্ষা হওয়ার কথা ছিল। কবে এই পরীক্ষা হবে সে কথা জানে না এই ভর্তি পরীক্ষার অপেক্ষায় থাকা শিক্ষার্থীরা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে গত মে মাসে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও প্রায় দুই মাস পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে। আগামী ৩১ জুলাই থেকে এ বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষার পরিবর্তিত তারিখ ঘোষণা করা হয়েছে। করোনার বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনায় চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট), খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (কুয়েট) এবং রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (রুয়েট) প্রকৌশল গুচ্ছের স্নাতক প্রথম বর্ষে ভর্তি পরীক্ষাও দুই মাস পিছিয়েছে। গত ১২ জুনের পরিবর্তে আগামী ১২ আগস্টে পূর্ব ঘোষিত সময় অনুযায়ী এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছে চুয়েট, কুয়েট ও রুয়েটের সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা কমিটি। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে শিক্ষা ভর্তির আবেদন প্রক্রিয়াই এখনো শুরুই হয়নি। সাতটি কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা আগামী ৩১ জুলাই হওয়ার কথা ছিল। এসব বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষাও পিছিয়ে আগামী ৪ সেপ্টেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষার অপেক্ষায় থাকা উম্মে হাবিবা ইউশা বলেন, এই সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়ে ক্লাস করার কথা ছিল আমাদের। অথচ এখনো ভর্তি পরীক্ষাই নেওয়া হলো না। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বাদে সবকিছুই তো খোলা। তাহলে আমরা কেন ক্ষতিগ্রস্ত হব? পাবলিক পরীক্ষায় অটোপাস দেওয়া যায়। কিন্তু ভর্তি পরীক্ষায় তো অটোপাস দেওয়ার সুযোগ নাই, তাহলে আমাদের কেন মাসের পর মাস অপেক্ষা করতে হচ্ছে? আমাদের শিক্ষাজীবন থেকে যে এক বছর চলে গেল এটি কে ফিরিয়ে দেবে? আর কত মাস আমরা ভর্তি পরীক্ষার প্রস্তুতি নেব? শিক্ষার্থীদের জীবন এতটা অনিশ্চয়তার কেন? আমরা চাই, স্বাস্থ্যবিধি মেনে দ্রুত সব বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা নেওয়া হোক।

এই বিভাগের আরও খবর