শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ২১ জুন, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২০ জুন, ২০২১ ২৩:২৪

স্কুলশিক্ষিকাকে জবাই করে গৃহকর্মীর আত্মহত্যা!

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিলেট

Google News

সিলেটের গোয়াইনঘাটে ‘ট্রিপল মার্ডার’র চার দিনের মাথায় স্কুলশিক্ষিকার জবাই করা ও তার গৃহকর্মীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ক্ষোভ থেকে ওই স্কুলশিক্ষিকাকে জবাই করে খুন করে গৃহকর্মী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে পুলিশ প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে। গত শনিবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে সিলেটের ওসমানীনগর উপজেলার দয়ামীর ইউনিয়নের সোয়াইরগাঁও গ্রাম থেকে দুজনের লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহতরা হলেন সোয়াইরগাঁওয়ের বাসিন্দা ডা. বিজন ভূষণ দের স্ত্রী, সোয়াইরগাঁও প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা তপতী রানী দে (৬০) ও বাড়ির গৃহকর্মী গৌরাঙ্গ বৈদ্য (২৫)। পুলিশ জানায়, তপতী রানী দের স্বামী ও ছেলে উভয়ই চিকিৎসক। স্বামী ও ছেলের সঙ্গে তিনি সোয়াইরগাঁও বসবাস করতেন। গত শনিবার বিকালে স্বামী ও ছেলে চেম্বারে প্র্যাকটিসে চলে যান। রাতে বাড়ি ফিরে স্বামী বিজন ভূষণ দে ডাকাডাকি করলেও ভিতর থেকে কোনো সাড়া পাননি। কেউ দরজাও খুলে দেয়নি। পরে পুলিশে খবর দেওয়া হয়। রাত ১২টার দিকে ওসমানীনগর থানার এসআই নাজমুল হুদা ঘরের বাথরুমের জানালা ভেঙে ভিতরে ঢুকে তপতী দের জবাই করা লাশ ও গৃহকর্মী গৌরাঙ্গের ঝুলন্ত মরদেহ দেখতে পান। সিলেট জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. লুৎফর রহমান জানান, ঘরের দরজা ভিতর থেকে বন্ধ ছিল। খবর পেয়ে পুলিশ জানালা ভেঙে ভিতরে ঢুকে শিক্ষিকার জবাই করা ও গৃহকর্মীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, কোনো কারণে মনের ক্ষোভ থেকে গৃহকর্মী গৌরাঙ্গ জবাই করে শিক্ষিকা তপতীকে খুন করেন। পরে তিনি গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। গৌরাঙ্গ অনেক বছর থেকে তপতীর বাড়িতে গৃহকর্মীর কাজ করে আসছিল। মাঝে মধ্যে তপতী গৌরাঙ্গকে গালমন্দ করতেন বলে স্থানীয়ভাবে জানা গেছে। প্রসঙ্গত, গত বুধবার সকালে সিলেটের গোয়াইনঘাটের ফতেহপুর ইউনিয়নের বিন্নাকান্দি গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে এক নারী ও তার দুই শিশু সন্তানের গলাকাটা ও কোপানো অবস্থায় লাশ উদ্ধার করা হয়। এ সময় আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয় ওই নারীর স্বামী হিফজুর রহমানকে। শনিবার হিফজুরকে ট্রিপল মার্ডারের ঘটনায় গ্রেফতার দেখানো হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর