শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ২৫ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৪ জুলাই, ২০২১ ২৩:৩৫

সমন্বিত উদ্যোগ ছাড়া ভূমধ্যসাগরে মৃত্যু ঠেকানো অসম্ভব

জুলকার নাইন

সমন্বিত উদ্যোগ ছাড়া ভূমধ্যসাগরে মৃত্যু ঠেকানো অসম্ভব
হুমায়ূন কবির
Google News

অবৈধ পথে ইউরোপযাত্রায় ভূমধ্যসাগরে বাংলাদেশি তরুণদের অকালমৃত্যু ঠেকাতে সমন্বিত ও টেকসই উদ্যোগ প্রয়োজন বলে মনে করেন সাবেক রাষ্ট্রদূত হুমায়ূন কবির। তার মতে শুধু দালাল ধরে বা কিছু হালকা প্রচার করে এ মৃত্যু ঠেকানো যাবে না। এ জন্য সামাজিক, অর্থনৈতিক ও নীতিগত উদ্যোগ প্রয়োজন। গতকাল বাংলাদেশ প্রতিদিনের সঙ্গে আলাপচারিতায় তিনি এসব কথা বলেন।

হুমায়ূন কবির বলেন, তরুণ প্রজন্মের মধ্যে কিছু একটা করে ভালো অবস্থানে যাওয়ার স্বাভাবিক প্রবণতা থাকবে। কিন্তু বাংলাদেশে এখন তাড়াতাড়ি ভাগ্য পরিবর্তনের প্রবণতা তৈরি হয়েছে। বিদেশ গিয়েই অবস্থার পরিবর্তন করার উদাহরণও দেখা যাচ্ছে আশপাশেই। গ্রামগঞ্জের তরুণদের মধ্যেই আকর্ষণ বিশেষভাবে প্রভাব বিস্তার করছে। সঙ্গে আছে একশ্রেণির দালাল, যারা তরুণ মনের স্বপ্ন উসকে দিচ্ছে।

বিদেশ যেতে পারলেই জীবন পাল্টানোর কথা বলে বেড়ানো দালাল চক্র যাওয়ার পথের মৃত্যুঝুঁকির কথা বলে না। ফলে আগে বাংলাদেশি তরুণরা সাহারা মরুভূমিতে মারা যেত, এখন ভূমধ্যসাগরে মারা যাচ্ছে। এর বিপরীতে সরকারি ও বেসরকারি যে ধরনের টেকসই প্রচার থাকার দরকার তা নেই। দেশের সীমানার বাইরের জীবন আর বাংলাদেশের জীবন যে এক নয় তা বোঝানোর মতো ক্যাম্পেইন সে অর্থে আমাদের নেই। তিনি বলেন, আমাদের পাঠ্যক্রমের মাধ্যমে মাধ্যমিকের বিভিন্ন শ্রেণির পাঠ্যবইয়ে যদি এ ধরনের মৃত্যুঝুঁকির কথা পড়ানো যায় তাহলে অন্তত তাদের মনস্তত্ত্বে তা প্রবেশ করানো যাবে। তখন দালালরা যেভাবেই বলুক তখন তারা সাগর পার হওয়ার ঝুঁকি সম্পর্কে বুঝতে পারবে। পাশাপাশি বাংলাদেশে যে কাজ করলে বিদেশের কাছাকাছি থাকা যায় তা বোঝাতে হবে। হুমায়ূন কবির বলেন, শুধু ভূমধ্যসাগরের মৃত্যু নিয়ে ভাবলেই চলবে না বাংলাদেশে বিকল্প কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি করতে হবে। বাংলাদেশে কয়েক বছর ধরে কোনো বেসরকারি বিনিয়োগ বাড়ছে না। বেসরকারি বিনিয়োগ না বাড়লে কর্মসংস্থান বাড়বে না। শুধু সরকারি চাকরি কজনকে দেওয়া যাবে। প্রতি বছর ২০ লাখ তরুণ চাকরির বাজারে আসছে সেখানে বেসরকারি কর্মসংস্থান ছাড়া কিছুতেই সম্ভব নয়। এজন্য সরকারের নীতিমালার পরিবর্তনের প্রয়োজন আছে। বড় বড় প্রকল্প করার পাশাপাশি কর্মসংস্থানের জন্যও কাজ করা প্রয়োজন। তিনি বলেন, তরুণরাই বাংলাদেশের সম্পদ। তাদের যদি সাহারা মরুভূমি বা ভূমধ্যসাগরে মরতে দিই এর চেয়ে বেদনাদায়ক আর কিছু হতে পারে না। তাই জাতীয়ভাবে উদ্যোগ নেওয়া প্রয়োজন। সমন্বিতভাবে অর্থনৈতিক, সামাজিক, মানসিক পরিবর্তন ছাড়া পরিস্থিতির পরিবর্তন সম্ভব নয়।