শিরোনাম
বৃহস্পতিবার, ৩০ নভেম্বর, ২০২৩ ০০:০০ টা
ভোট কীভাবে পর্যবেক্ষণ

পর্যবেক্ষকদের রিপোর্ট অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ

---- ড. কলিমউল্লাহ

নিজস্ব প্রতিবেদক

পর্যবেক্ষকদের রিপোর্ট অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ

জাতীয় নির্বাচন পর্যবেক্ষক পরিষদের (জানিপপ) চেয়ারম্যান ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ বলেছেন, প্রতিটি নির্বাচনে ভোট নিয়ে পর্যবেক্ষকদের রিপোর্ট অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। নির্বাচনের মান, পরিবেশ, নির্বাচনের সার্বিক বিষয় পর্যবেক্ষকদের রিপোর্টে ফুটে ওঠে। এ জন্য পর্যবেক্ষকদের রিপোর্ট আলাদা একটি গুরুত্ব বহন করে। গতকাল বাংলাদেশ প্রতিদিনকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ড. কলিমউল্লাহ বলেন, আমরা জেনেছি ৫০ দেশ থেকে পর্যবেক্ষক হতে আবেদন করেছে। আমাদের দেশের স্থানীয় পর্যবেক্ষকরাও পর্যবেক্ষণ করে থাকেন। একটা বিষয় হচ্ছে ভোটে যত বেশি পর্যবেক্ষক আসবে ততই ভালো।

নির্বাচনের মান ও গ্রহণযোগ্যতার প্রশ্নে কোন কোন দেশ থেকে পর্যবেক্ষক আসা জরুরি জানতে চাইলে জানিপপ চেয়ারম্যান বলেন, কিছু বিশেষ দেশের প্রতি একটা আলাদা গুরুত্ব থাকে। তবে আমি বলব, যারা বা যে সংগঠনগুলো পেশাদারিত্বের সঙ্গে কাজগুলো করে তাদের আগমন জরুরি। ইউরোপ, আমেরিকা, এশিয়াসহ বিভিন্ন মহাদেশে নির্দিষ্ট কিছু সংগঠন আছে যারা পেশাদারিত্বের সঙ্গে সুনামের সঙ্গে পর্যবেক্ষণের কাজ করে আসতেছে। উদাহরণ দিয়ে তিনি বলেন, আমাদের বাংলাদেশে সবচেয়ে পুরনো সংগঠন বলতে পারেন জানিপপ। আমরা গত তিন দশক করে দেশে-বিদেশে কাজ করছি। আমাদের যে অভিজ্ঞতা, আমাদের যে পারদর্শিতা আছে সেটি উল্লেখযোগ্য। এরকম বৈশ্বিকভাবে অনেকেই কাজ করছে। সুপরিচিত অনেক প্রতিষ্ঠান আছে। কমিশনও এরকম অনেককেই আহ্বান জানিয়েছে। যত বেশি পর্যবেক্ষক আসবে সেটি দেশের জন্যও ভালো, গ্রহণযোগ্যতাও বাড়ে। দেশের এবং বিদেশের পর্যবেক্ষককে ঝুঁকির বিষয়ে ড. কলিমউল্লাহ বলেন, সামনে দ্বাদশ নির্বাচন। অনেক সময় নির্বাচনে সহিংসতা ঘটে। নির্বাচনের সময় ঝুঁকির বিষয়টি থাকেই। তবে যারা এ কাজটি সবসময় করে অভ্যস্ত তাদের কাছে এই ঝুঁকির বিষয় সমস্যা হবে বলে মনে করি না। আমরা যারা পর্যবেক্ষণ করি দেশি এবং বিদেশি সব পর্যবেক্ষক একটা গাইড লাইনের মধ্যে চলতে হয়। এরকম আইনকানুন নীতিমালা আছে সেগুলো আপডেট করেছে কর্তৃপক্ষ। এ সময় পর্যবেক্ষকদের সময় বাড়ানোর বিষয়টি ইতিবাচক উল্লেখ করে বলেন, দেশীয় সংস্থাগুলোকে দুই ফেজে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। আবার বিদেশিদের সময় বাড়ানো হয়েছে ফলে দেশের পর্যবেক্ষকদেরও আবেদনের সময় বেড়েছে। নির্বাচন কমিশন চায় বেশি মানুষ এখানে পর্যবেক্ষণ করুন। এটা কিন্তু ভালো বিষয়। কেননা বেশি মানুষকে সংযুক্ত করতেই ইসি হয়তো সময় বাড়াচ্ছে। বেশি মানুষ সংযুক্ত মানে বিষয়টি আরও বেশি স্বচ্ছ।

সর্বশেষ খবর