১০ আগস্ট, ২০২১ ১০:৩৪

সংবর্ধনার মঞ্চে সিংহ ভাগজুড়ে মোদির মুখ! আসলে পদক জিতল কে?

অনলাইন ডেস্ক

সংবর্ধনার মঞ্চে সিংহ ভাগজুড়ে মোদির মুখ! আসলে পদক জিতল কে?

গত সপ্তাহেই দেশের সর্বোচ্চ ক্রীড়াসম্মান ধ্যান চাঁদের নামে করার সরকারি টুইটে ছবি জুড়ে তিনি। কার্যত এক কোণে হকির জাদুকর! সোমবার প্রায় তারই পুনরাবৃত্তি টোকিও অলিম্পিকে পদকজয়ীদের সরকারি সংবর্ধনার অনুষ্ঠানে। মঞ্চের পিছনে ছবির সিংহ ভাগজুড়ে নরেন্দ্র মোদির মুখ। সেই তুলনায় একেবারে ছোট ছোট সাত বৃত্তে সাত পদকজয়ী! এ ছবি সামনে আসার পরেই সমালোচনা, বিতর্ক আর মশকরায় মেতে উঠল সমাজমাধ্যম। ভেসে এল কটাক্ষ, ‘মেডেল আসলে জিতলেন কে? নীরজ চোপড়া, মীরাবাই চানু, পি ভি সিন্ধুরা? না কি উনি?’

অলিম্পিক চলাকালীন প্রধানমন্ত্রী কখনও পদকজয়ী অ্যাথলেটদের সঙ্গে সরাসরি কথা বলেছেন, আবার কখনও সান্ত্বনা দিয়েছেন একটুর জন্য ব্রোঞ্জ হারানো মহিলা হকি দলকে। দ্রুত সেই ছবি সংবাদ ও সমাজমাধ্যমে ছড়িয়ে দিয়েছে সরকার এবং বিজেপি। কখনও আবার স্বাধীনতার ৭৫ বছরের সঙ্গে অলিম্পিক সাফল্যকে জুড়ে দেওয়ার চেষ্টা করেছেন মোদি নিজে। বিরোধীরা বলেছেন, “ভাবখানা এমন, যেন তার প্রেরণাতেই একের পর এক পদকজয়।”

সেই কটাক্ষের সূত্র ধরেই এদিন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী ফের মনে করিয়ে দিয়েছেন, গত বাজেটেও ক্রীড়া খাতে ২৩০ কোটি টাকা ছাঁটাই করেছে মোদি সরকার। অথচ এখন অলিম্পিকের ভাল ফলকে নিজেদের সাফল্য হিসেবে তুলে ধরতে মাঠে নেমে পড়েছে তারা।

শুধু তা-ই নয়। বিজেপির এই চেষ্টাকে লক্ষ্য নিয়ে এদিন সকাল থেকেই হরিয়ানা সরকারকে নিশানা করেছেন রাহুল। তার টুইট, “শুধু শুকনো অভিনন্দন না জানিয়ে খেলোয়াড়দের বকেয়া পুরস্কারের টাকা দিন।...ভিডিও কল অনেক হয়েছে। এবার ঘোষিত পুরস্কারের টাকাটা অন্তত দেওয়া হোক।”

সঙ্গে জুড়ে দিয়েছেন হরিয়ানার ক্রীড়াবিদের পূর্ব প্রতিশ্রুত টাকা না-পাওয়ার বিষয়ে সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর। নিশানা হরিয়ানা সরকার হলেও, কটাক্ষের তীর মোদির দিকেও।

হরিয়ানা সরকার ও বিজেপিকে আরও অস্বস্তিতে ফেলেছে টোকিওতে একাধিক পদকজয়ীর পুরনো টুইট। ২০১৯ সালের জুনে করা এক টুইটে এবার অলিম্পিকে কুস্তিতে ব্রোঞ্জ জেতা বজরং পুনিয়া মনে করিয়ে দিয়েছিলেন, ২০১৮ সালে এশিয়ান গেমসে সোনা জেতার জন্য তাকে তিন কোটি রুপি পুরস্কার দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অনিল ভিজ। ওই টুইটে পুনিয়ার প্রশ্ন ছিল, “যদি আপনারা কথা রাখতেই না পারেন, তাহলে ভবিষ্যতে খেলোয়াড়রা আর কী প্রত্যাশা রাখবে?”

কয়েক ঘণ্টার মধ্যে ওই বার্তা রিটুইট করেছিলেন টোকিওতে দেশকে ট্র্যাক অ্যান্ড ফিল্ডে প্রথম সোনা এনে দেওয়া নীরজও। প্রশ্ন তুলেছিলেন, “কথা রাখুন। যাতে আমরা টাকার চিন্তা ঝেড়ে ফেলে অলিম্পিকের প্রস্তুতিতে মন দিতে পারি।”

এবারও টোকিওতে সাফল্যের পরে নীরজের জন্য ৬ কোটি এবং বজরংকে ২.৫ কোটি রুপি দেওয়ার কথা বলেছে হরিয়ানা সরকার। কংগ্রেসের কটাক্ষ, এবারও টাকা হাতে পৌঁছাবে তো?

পদকজয়ী অ্যাথলেটরা দেশে ফেরার পরে তাদের ‘কৃতিত্বে ভাগ বসাতে’ কেন্দ্র যে ভাবে ঝাঁপিয়েছে, তা দৃষ্টিকটূ বলে বিঁধছে কংগ্রেস-সহ বিরোধীরা। তেমনই শাসক দলের নেতারাও পাল্টা বলছেন, খুঁজলে এই একই রকম অভিযোগ তোলা যেতে পারে বিরোধী দল ও তাদের শাসিত বহু রাজ্যের বিরুদ্ধেও।

বিডি প্রতিদিন/কালাম

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর