Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ২৩:৩৮

সংক্ষেপে

সংক্ষেপে

বিমানবন্দরে আটকে গেলেন অখিলেশ!

উত্তরপ্রদেশের এলাহাবাদ বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে গিয়ে লক্ষে বিমানবন্দরে আটকে গেলেন সমাজবাদী পার্টি (সপা) সভাপতি ও উত্তরপ্রদেশের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদব। শৃঙ্খলা বিঘ্নিত হতে পারে- এই আশঙ্কায় গতকাল বিমানবন্দরেই অখিলেশকে আটক করে যোগী আদিত্যনাথের পুলিশ। অখিলেশ টুইটারে সেই ছবি পোস্ট করার পরই উত্তরপ্রদেশে একাধিক জায়গায় বিক্ষোভ শুরু করে সপা দলের কর্মী-সমর্থকরা। কলকাতা প্রতিনিধি

 

ইয়েমেন যুদ্ধে সহায়তা

ইয়েমেন যুদ্ধে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক সহায়তা বন্ধ করতে কোনোমতেই রাজি নন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সহায়তা বন্ধের জন্য মার্কিন কংগ্রেসে ডেমোক্র্যাট ও কতিপয় রিপাবলিকান সদস্যের পক্ষ থেকে উদ্যোগ নেওয়া হলেও সোমবার ট্রাম্প প্রশাসনের বিরুদ্ধে ভেটো প্রদানের হুমকি দিয়েছে। ট্রাম্পের ভেটো উপেক্ষা করে প্রস্তাবটিকে কংগ্রেসে পাস করাতে হলে দুই কক্ষেই দুই-তৃতীয়াংশ ভোট নিশ্চিত করতে হবে ডেমোক্র্যাটদের।

 প্রতিনিধি পরিষদে ডেমোক্র্যাটদের সংখ্যাগরিষ্ঠতা থাকলেও সিনেট এখনো রিপাবলিকানদের দখলে। ব্রিটিশ বার্তা রয়টার্সের প্রতিবেদন থেকে এসব কথা জানা গেছে। ইয়েমেনে মানবিক বিপর্যয় নিয়ে উদ্বেগ এবং সৌদি সাংবাদিক জামাল খাশোগিকে হত্যার ঘটনায় নিন্দা জানিয়ে রিয়াদকে কড়া বার্তা প্রদানের উদ্যোগ নিয়েছেন মার্কিন আইনপ্রণেতারা। এর মধ্যে ডেমোক্র্যাটদের পাশাপাশি ট্রাম্পের নিজ দলের আইনপ্রণেতারাও আছেন। গত বছরের ডিসেম্বরে ‘যুদ্ধ ক্ষমতা’ নামক এ সংক্রান্ত একটি সমাধান প্রস্তাব পাস করেছিল রিপাবলিকান নিয়ন্ত্রিত সিনেট। রিপাবলিকান নিয়ন্ত্রিত প্রতিনিধি পরিষদে এ প্রস্তাব নিয়ে ভোটাভুটিই করতে দেওয়া হয়নি। তবে মধ্যবর্তী নির্বাচনে জয়ের মধ্য দিয়ে প্রতিনিধি পরিষদে এখন সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছে ডেমোক্র্যাটরা। দুই সপ্তাহ আগে প্রস্তাবটি কংগ্রেসে নতুন করে উত্থাপন করেছেন ডেমোক্র্যাট ও রিপাবলিকান আইনপ্রণেতারা। ট্রাম্প প্রশাসনের দাবি, ওই প্রস্তাবটি অযথার্থ। কারণ হিসেবে বলা হয়, ইয়েমেন যুদ্ধে মার্কিন বাহিনী শুধু বিমানের জ্বালানি ও অন্য সহায়তা দিচ্ছে, তারা সরাসরি যুদ্ধ করছে না। তবে বিশ্লেষকরা বলছেন এই যুদ্ধে হাজার হাজার ইয়েমেনি নাগরিক মারা যাচ্ছে। দেশটি দুর্ভিক্ষ ও ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে অবস্থান করছে।


আপনার মন্তব্য