শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ৩ জুন, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২ জুন, ২০২১ ২৩:৪৬

বৈশ্বিক উষ্ণায়নে বাড়ছে মৃত্যু

বৈশ্বিক উষ্ণায়নে বাড়ছে মৃত্যু
Google News

বিরূপ আচরণে বিগড়ে যাচ্ছে প্রকৃতি। ফলে তাপ বাড়ছে প্রকৃতির। বাড়ছে মৃত্যুও। জলবায়ু পরিবর্তনে যত মৃত্যু তার এক-তৃতীয়াংশের বেশি ঘটে উষ্ণায়নের কারণে। সোমবার আন্তর্জাতিক গবেষকদের একটি দল এ তথ্য জানিয়েছেন। তাঁরা সতর্ক করে বলেছেন, বৈশ্বিক তাপমাত্রা আরও বাড়লে প্রাণহানি আরও বেশি ঘটতে পারে।

১৯৯১ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে ৭৩২টি শহরে উষ্ণায়নের প্রভাব নিয়ে গবেষণা করেন একদল গবেষক। ‘নেচার ক্লাইমেট চেঞ্জ’ জার্নালে সোমবার প্রকাশিত ওই গবেষণা রিপোর্টে দেখা গেছে, মানবসৃষ্ট উষ্ণতা থেকে উচ্চ তাপমাত্রার কারণে সব মৃত্যুর ক্ষেত্রে গড়ে ৩৭ শতাংশকে সরাসরি বৈশ্বিক উষ্ণতার জন্য দায়ী করা যেতে পারে। শতাংশ মৃত্যু বেড়েছে।

জলবায়ু পরিবর্তন কীভাবে মানুষের স্বাস্থ্যকে প্রভাবিত করে, সে ঝুঁকি সম্পর্কে আগের নানা গবেষণায় পূর্বাভাস দিয়ে বলা হয়েছে, তাপমাত্রা, খরা, দাবানল এবং অন্য চরম ঘটনাগুলো উষ্ণায়নের ফলে ভবিষ্যতে আরও খারাপ পরিস্থিতির দিকে যেতে পারে। গবেষণায় দেখা গেছে, পরিস্থিতি কতটা খারাপ হবে তা নির্ভর করে মানুষ কত দ্রুত কার্বন নিঃসরণ কমাতে পারবে তার ওপর। ২০১৯ সালে রেকর্ড পরিমাণ কার্বন নিঃসরণ ঘটলেও করোনা মহামারীর সময় তা কমেছে। গবেষণা নিবন্ধের জ্যেষ্ঠ লেখক আন্তোনিও গ্যাসপারিনি বলেন, ‘জলবায়ু পরিবর্তন সুদূর ভবিষ্যতে কিছু নয়। আমরা পরিবেশ ও বাস্তুসংস্থানসংক্রান্ত প্রভাব ছাড়াও ইতিমধ্যে স্বাস্থ্যের ওপর এর নেতিবাচক প্রভাব পরিমাপ করতে পারি।’ গবেষকরা বলেন, তাঁরা যে পদ্ধতিতে গবেষণা করেছেন তা যদি বিশ্বব্যাপী বর্ধিত করা যায় তবে দেখা যাবে মানবসৃষ্ট জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে প্রতি বছর ১ লাখের বেশি মানুষের তাপজনিত মৃত্যু সংঘটিত হবে।

জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব পড়েছে দাবানল থেকে শুরু করে চরমভাবাপন্ন আবহাওয়ার ক্ষেত্রেও। তাপমাত্রা বেড়ে যাওয়ার পথে ঘন ঘন দাবদাহ সৃষ্টির ফলে বয়স্ক মানুষের ওপর তার প্রভাব পড়ে। যাঁদের হাঁপানির মতো রোগ আছে তাঁরা অনেক বেশি ঝুঁকি ও অকালমৃত্যুর মুখে পড়েন।