শিরোনাম
রবিবার, ১৭ ডিসেম্বর, ২০২৩ ০০:০০ টা

হুতি নিয়ন্ত্রিত ইয়েমেন থেকে আরও দুই জাহাজে হামলা

গাজায় ফিলিস্তিনিদের ওপর ইসরায়েলের নির্বিচার হামলার প্রতিবাদে লোহিত সাগরে আরও দুই বাণিজ্যিক জাহাজে হামলা চালিয়েছে ইয়েমেনের ক্ষমতাসীন হুতি গোষ্ঠী। শুক্রবার এসব হামলা চালানো হয়। হুতিদের সামরিক বাহিনীর মুখপাত্র ইয়াহিয়া সারিয়া জানিয়েছেন, জাহাজ দুটি ইসরায়েলে যাচ্ছিল।

এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘ইয়েমেনের সশস্ত্র বাহিনীর মেরিন সেনারা এমএসসি আলানিয়া ও এমএসসি পালেসিয়াম নামের দুটি জাহাজের বিরুদ্ধে সামরিক অভিযান চালিয়েছে। জাহাজ দুটি ইসরায়েলি বন্দরের দিকে যাচ্ছিল। দুটি মেরিন রকেট দিয়ে জাহাজ দুটিতে আঘাত হানা হয়েছে।’ ইয়েমেনের মেরিন বাহিনীর ডাকে ও কড়া হুঁশিয়ারি বার্তায় সাড়া না দেওয়ায় সেগুলোকে লক্ষ্যস্থল করা হয়। যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা দুটি হামলা হয়েছে বলে নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, হামলায় জাহাজগুলোতে আগুন ধরে যায়। তবে হুতিরা যে দুটি নাম বলেছে তাদের একটি আক্রান্ত জাহাজগুলোর মধ্যে নেই বলে জানিয়েছেন তিনি। লোহিত সাগরের জাহাজ চলাচলের জলপথে ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক আছে বিবেচনায় বিভিন্ন বাণিজ্যিক জাহাজে হামলা চালাচ্ছে হুতিরা। তারা তাদের সীমান্ত থেকে হাজার কিলোমিটার দূরে ইসরায়েলে ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলাও চালিয়েছে। হুতিরা বলছে, গাজায় হামাসের সঙ্গে ইসরায়েলের যে যুদ্ধ হচ্ছে তাতে ফিলিস্তিনিদের পক্ষে সমর্থনের লক্ষ্যে তারা এসব হামলা চালাচ্ছে। ইসরায়েল গাজায় আক্রমণ বন্ধ না করা পর্যন্ত এসব হামলা চলবে বলে জানিয়েছে তারা।

জার্মানির পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানিয়েছেন, শুক্রবার যে দুটি জাহাজে হামলা চালানো হয়েছে তাদের মধ্যে একটি জার্মান মালিকানাধীন। হুতিদের এ ধরনের কর্মকান্ড অবিলম্বে বন্ধ করার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। ইসরায়েলের প্রতি নিরাপত্তা হুমকি শুধু গাজার হামাসের দিক থেকেই আসছে না, হুতিদের দিক থেকেও আসছে বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

এদিকে শুক্রবার ডেনিশ শিপিং কোম্পানি এ. পি. মোলার-মেয়ার্স্ক শুক্রবার রয়টার্সকে জানিয়েছে, পরবর্তী নোটিস না দেওয়া পর্যন্ত তারা লোহিত সাগর পথে সব কনটেইনার শিপমেন্ট বন্ধ রাখবে। কোম্পানিটি জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার তাদের মেয়ার্স্ক জিব্রাল্টার কনটেইনার জাহাজ বাব-আল-মান্দেব প্রণালিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলার শিকার হতে হতে বেঁচে গেছে এবং শুক্রবার আরেকটি কনটেইনার জাহাজ হামলার নিশানা হয়েছে। এ ঘটনার পর ওই অঞ্চলে মেয়ার্স্কের সব জাহাজকেই বাব-আল-মান্দেব প্রণালি পাড়ি দিতে নিষেধ করেছে তারা। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত যাত্রা বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে। বাব-আল-মান্দেব লোহিত সাগর ও এডেন উপসাগরকে সংযোগকারী ২০ মাইল চওড়া একটি প্রণালি। এটি ‘গেট অব টিয়ারস’ নামেও পরিচিত। আরব উপদ্বীপের ইয়েমেন এবং আফ্রিকা উপকূলের জিবুতি ও ইরিত্রিয়ার মধ্যে এই প্রণালি অবস্থিত। শুক্রবার হুতিদের তৎপরতা নিয়ে প্রশ্নে সৌদি আরবের পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রিন্স ফয়সাল বিন ফারহান তাদের কর্মকান্ডের প্রভাব নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেছেন, ‘অবশ্যই সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা নিয়ে আমরা উদ্বিগ্ন। আমাদের অঞ্চলটি অত্যন্ত জটিল। আরও সংঘাত শুরু হোক তা চাই না আমরা। আমরা আশা করছি, আমাদের অঞ্চলে আরও সংঘাত ছড়িয়ে পড়া এড়াতে পারব আমরা।’ শুক্রবার রাতে হোয়াইট হাউসের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন কারবি লোহিত সাগরে বাণিজ্যিক জাহাজগুলোর জন্য বিপজ্জনক পরিস্থিতি বিরাজ করছে বলে জানান। পরিস্থিতি সামাল দিতে একটি মেরিটাইম টাস্ক ফোর্স গঠন করা হচ্ছে বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন তিনি।

সর্বশেষ খবর