শিরোনাম
সোমবার, ২৯ জানুয়ারি, ২০২৪ ০০:০০ টা

মঙ্গলে প্রাচীন হ্রদের প্রমাণ পেল নাসা

মঙ্গলে প্রাচীন হ্রদের প্রমাণ পেল নাসা

সম্প্রতি মঙ্গল গ্রহে প্রাচীন এক হ্রদের সন্ধান পাওয়া গেছে। নাসার এক গবেষণা থেকে উঠে এসেছে এই তথ্য। পানি জমে তৈরি হওয়া এ প্রাচীন হ্রদে পলির সন্ধান মিলেছে। এই হ্রদ মঙ্গল গ্রহের ‘জেরেজো ক্রেটার’ নামের এক বিশাল অববাহিকা ভরাট করেছিল বলে জানানো হয়েছে। দুই দিন আগে নাসার তরফ থেকে একটি সমীক্ষা প্রকাশিত হয়। নাসা রোভারের ডেটা সংগৃহীত করে এই প্রাচীন হ্রদে জমে থাকা পলির অস্তিত্ব নিশ্চিত করেছে। রোভার পর্যবেক্ষণের দ্বারা কক্ষপথের চিত্র এবং অন্যান্য তথ্য সংগ্রহ করে। যার ওপর ভিত্তি করে বিজ্ঞানীরা জানতে পারেন যে, মঙ্গল গ্রহের বেশকিছু অংশ পানিতে ঢাকা ছিল। লস অ্যাঞ্জেলেসের ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয় এবং অসলো বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের নেতৃত্বে সায়েন্স অ্যাডভান্সেস জার্নালে প্রকাশ করা হয়েছে বিষয়টি।

গবেষণা থেকে জানা যায়, এটি আসলে দেখতে অনেকটা গাড়ির মতো। রোভারের মাধ্যমে নেওয়া সাবসারফেস স্ক্যানের ওপর ভিত্তি করে এটি বানানো হয়েছে। মঙ্গল গ্রহের পৃষ্ঠের ওপর নদীর ব-দ্বীপ খুঁজে পাওয়া যায়। রোভারের রিমফ্যাক্স রাডারের আওয়াজ বিজ্ঞানীদের সাহায্য করে মাটির নিচে অবস্থিত ৬৫ ফুট গভীর শিলার ব্যাপারে স্পষ্ট ধারণা পেতে। বিজ্ঞানী ডেভিড পেইজের ব্যাখ্যা অনুযায়ী, ‘এটি প্রায় একটি রাস্তা কাটা দেখার মতো।’

এগুলো থেকে স্পষ্ট না হলেও প্রমাণ পাওয়া যায়, পানির টানে বয়ে যাওয়া মাটি জেরেজো ক্রেটার জমে। গবেষণা থেকে আগের তথ্যপ্রমাণগুলো যে সত্যি তার প্রমাণ স্পষ্ট। ঠান্ডা, শুষ্ক, প্রাণহীন মঙ্গল গ্রহ যে একসময় উষ্ণ, ভেজা ছিল। এ ছাড়া জানা যায়, মঙ্গল গ্রহই এক সময় বসবাসের উপযোগী ছিল। বিজ্ঞানীদের অনুমান আনুমানিক প্রায় ৩ বিলিয়ন বছর আগে সেখানে জীবের বাস ছিল। ২০২১ সালের ফেব্রুয়ারিতে অবতরণের পর বিজ্ঞানীরা জানতে পারেন, শিলাটি আগ্নেয়গিরির মতো ছিল। শিলাটি পানির সংস্পর্শে আসার কারণেই তার পরিবর্তন হয়। পেইজের মতে, পাললিক স্তর গঠনের আগে ও পরে শিলাগুলির ক্ষয় হয়েছে।

সর্বশেষ খবর