শিরোনাম
প্রকাশ : ২৬ জুন, ২০১৯ ২০:৫১

আসামে নাগরিক পঞ্জির নতুন তালিকা থেকে বাদ এক লাখ

দীপক দেবনাথ, কলকাতা

আসামে নাগরিক পঞ্জির নতুন তালিকা থেকে বাদ এক লাখ

ভারতের আসামে জাতীয় নাগরিক পঞ্জি বা ন্যাশনাল রেজিস্টার অব সিটিজেনস (এনআরসি)’এর খসড়া তালিকা থেকে বাদ পড়ল প্রায় এক লাখ মানুষ।

বুধবার ‘রেজিস্টার জেনালের অফ ইন্ডিয়া’র তরফে একটি অতিরিক্ত খসড়া তালিকা প্রকাশিত হয়। যেখানে ১,০২,৪৬২ জন নাগরিকের নাম তালিকা থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে। 

অথচ ২০১৮ সালের ৩০ জুলাই প্রকাশিত এনআরসি-এর চূড়ান্ত খসড়া তালিকাতেও এই মানুষগুলোর নাম ছিল। কিন্তু এবার অন্তর্ভুক্তির জন্য অনুপযুক্ত হিসাবে বিবেচিত হলেন তারা।
 
উল্লেখ্য, গত বছরের ৩০ জুলাই আসামে প্রকাশিত হয় জাতীয় নাগরিক পঞ্জির (এনআরসি) চূড়ান্ত খসড়া তালিকা। এনআরসি’এর কাছে জমা পড়া ৩.২৯ কোটি আবেদনকারীর মধ্যে চূড়ান্ত খসড়া তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয় ২ কোটি ৮৯ লাখ ৮৩ হাজার ৬৬৭ জনের নাম। তালিকা থেকে বাদ পড়ে প্রায় ৪০ লাখ বাসিন্দা। অর্থাৎ সব মিলিয়ে এনআরসি তালিকা থেকে বাদ গেল ৪১ লাখেরও বেশি মানুষের নাম। 

গত বছর ৪০ লাখ মানুষের নাম বাদ যাওয়ার পরই কেন্দ্রের ক্ষমতাসীন দল বিজেপি’এর বিরুদ্ধে সরব হয় বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলো। ভারতের শীর্ষ আদালত সুপ্রিম কোর্টের তত্ত্বাবধানেই আসামের নাগরিক পঞ্জি তৈরি হচ্ছে। নাগরিক পঞ্জির চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ হবে আগামী ৩১ জুলাই।
 
অনুপ্রবেশ ইস্যুতে জর্জরিত আসামই দেশের একমাত্র রাজ্য যেখানে জাতীয় নাগরিক নিবন্ধন প্রক্রিয়া রয়েছে। ১৯৫১ সালে যা প্রথম তৈরি করা হয়েছিল। এর আগে প্রথম আংশিক খসড়াটি প্রকাশিত হয়েছিল ২০১৭ সালের ৩১ ডিসেম্বর। 

মূলত বাংলাদেশ থেকে অনুপ্রবেশকারীদের চিহ্নিত করতেই এই তালিকা সংশোধন করা হচ্ছে। যাদের নাম তালিকায় রয়েছে, তাদের প্রত্যেকের বাড়ির ঠিকানায় চিঠি দিয়ে আলাদা করে জানানো হবে। তবে বাদ পড়া ব্যক্তিরাও ফের পুনর্বিবেচনার আবেদনের সুযোগ পাবেন। ১১ জুলাইয়ের মধ্যে এনআরসি সেবা কেন্দ্রে তারা আবেদন করতে পারবেন। 

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেন, ‘প্রকৃত ভারতীয়দের একজনকেও চূড়ান্ত তালিকা থেকে বাদ দেওয়া হবে না।’


বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন


আপনার মন্তব্য