শিরোনাম
প্রকাশ : ৩ জুলাই, ২০২০ ১৩:০৬

ভারতের হাসপাতালে বাংলাদেশি নাগরিকের মৃত্যু

দীপক দেবনাথ, কলকাতা

ভারতের হাসপাতালে বাংলাদেশি নাগরিকের মৃত্যু

ভারতের আসাম রাজ্যের হাসপাতালে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে এক বাংলাদেশি বিচারাধীন বন্দির মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। ধুবড়ি সিভিল হাসপাতালে চিকিৎসা চলাকালীন সময়েই তার মৃত্যু হয়। ৫৭ বছর বয়সী ওই মৃত ব্যক্তির নাম বকুল মিয়া। তার বাড়ি বাংলাদেশের কুড়িগ্রাম জেলার চিলামারী থানার অধীন ব্যাপারী পাড়া গ্রামে। 

আসাম পুলিশ সূত্রে খবর, লকডাউন বিধি লঙ্ঘন করার অভিযোগে কয়েকদিন আগে ধুবড়ি পুলিশ মোট ২৬ জন বাংলাদেশিকে আটক করেছিল, বকুল মিয়া তাদের মধ্যে একজন। ধুবড়ি জেলার ছাপোর পুলিশ থানায় তাদের বিরুদ্ধে ভারতীয় দন্ডবিধির ১৪ ফরেনারস আইন, পাসপোর্ট আইন সহ আরও কয়েকটি ধারায় মামলা করা হয়েছিল। এরপর গত ৬ মে থেকে বকুল মিয়া সহ অন্যরা ধুবড়ি কারাগারে বন্দি ছিলেন। 
গত মঙ্গলবার হঠাৎ করেই বমি ও রক্তচাপ বেড়ে যাওয়ায় বকুল মিয়াকে প্রথমে জেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। কিন্তু শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ার কারণে পরে তাকে ধুবড়ি সিভিল হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। বুধবার সেখানেই হৃদরোগে আক্রান্ত তার মৃত্যু হয়। 

তবে জেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা সূত্রে খবর এর আগে বকুল মিয়ার সোয়াব টেস্ট করা হলেও তার শরীরে করোনা পজিটিভ মেলেনি। 

বকুল মিয়ার মরদেহ তার পরিবারের হাতে তুলে দেওয়ার জন্য আসাম সরকারের তরফে বাংলাদেশ দূতাবাসের সাথে যোগাযোগ করা হচ্ছে। 

ইতিমধ্যেই বকুল মিয়ার মরদেহ পোস্ট মর্টেমের জন্য বরাপেটার ফকরুদ্দিন আলি আহমেদ মেডিকেল কলেজ এন্ড হসপিটাল পাঠানো হয়েছে। সেখান থেকে কফিন বন্দি করে তার মরদেহ বাংলাদেশে পাঠানো হবে।  

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন
 


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর