শিরোনাম
৭ ডিসেম্বর, ২০২৩ ২০:২৮

বাগানে ঢুকে শ্রমিকদের সাথে চা পাতা তুললেন মমতা

দীপক দেবনাথ, কলকাতা

 বাগানে ঢুকে শ্রমিকদের সাথে চা পাতা তুললেন মমতা

কখনো চা তৈরি করে, কখনো চপ ভেজে, আবার কখনো মোমো বানিয়ে জনসংযোগ বাড়াতে ও সাধারণ মানুষের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে দেখা গেছে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জিকে। সেই জনসংযোগ বাড়াতে এবার ফের এক নতুন ভূমিকায় দেখা গেল তাকে। চায়ের বাগানে ঢুকে চা পাতা তুললেন, পাশাপাশি নেপালি নৃত্যের ছন্দে পা মেলালেন মমতা। 

ছয় দিনের সফরে বুধবার উত্তরবঙ্গ সফরে গেছেন মমতা। সেখানে দুই দিনের এক পারিবারিক অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার পাশাপাশি কিছু সরকারি অনুষ্ঠানেও যোগ দেবেন তিনি। 

এরই ফাঁকে বৃহস্পতিবার দার্জিলিং জেলার কাশিয়াং’এর মকাইবাড়ি চা বাগান পরিদর্শন করেন মমতা। এ সময় চা শ্রমিকদের সাথে কথা বলে কিভাবে চা পাতা তুলতে হয় সেটা শিখে নেন তিনি। পর মুহূর্তেই পাহাড়ি পোশাক পড়ে পিঠে ঝুড়ি চাপিয়ে চা বাগানে প্রবেশ করে চা পাতা তোলেন। 
পাশাপাশি নেপালি নৃত্যের তালে তালে পা মেলান মমতা। স্থানীয় বাসিন্দাদের হাতে শীতবস্ত্র তুলে দেন মুখ্যমন্ত্রী। এ সময় তিনি বলেন ‘ঠান্ডা থেকে বাঁচতে হবে, ভালো করে কাজ করতে হবে।’ 

পরে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে মমতা বলেন, আমি আজকে খুব খুশি, এই যে পাহাড়ে চা শ্রমিকদের সাথে মিশে তাদের সাথে চা তুলতে যাওয়া। দার্জিলিং কালিম্পং নিয়ে আমার অনেক কবিতা আছে। জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ার আমি যেখানে যা দেখেছি তাই নিয়েই। কিন্তু আজকে পোশাক পড়ে ওদের ঝুড়ি নিয়ে এই যে নিজে চা তুললাম এবং চা তোলাটা ওদের কাছ থেকে শিখলাম, তাতে এখন আমি যে কোন বাগানে গিয়ে চা তুলতে পারি। এটাই আজকে আমার জীবনের বড় শিক্ষা লাভ। একদিকে পাহাড়ের সাথে আমাদের রক্তের বন্ধন তৈরি হয়ে গেল, হৃদয়ের বন্ধন হয়ে গেল। পাহাড় আমার নিজের বাড়ি হয়ে গেল। তাই পাহাড় এবং সমতলের মধ্যে যে ঐক্যের বন্ধন তৈরি হলো, আমি মনে করি সকলে একসাথে মিলে কাজ করব। আমি কেবল মুখে বলি না, রক্তের সম্পর্ক করে দেখাই। আজকে আমি সত্যিই খুব খুশি। আজ আমার কাছে ঐতিহাসিক দিন। আমি পাহাড়ের মানুষকে অভিনন্দন জানাই। এই মানুষগুলো ভালো থাকুক, আমাদের চা বাগান ভাল থাকুক, আমি এটাই চাই। 

আগামীকাল শুক্রবার দুপুরে কার্শিয়াঙের মন্টিভিয়ট মাঠে একটি সরকারি সভায় যোগ দেবেন মুখ্যমন্ত্রী। পরে পাহাড় থেকে সমতলে নেমে এসে আলিপুরদুয়ার, জলপাইগুড়ির, বানারহাট ঘুরে শিলিগুড়ির ‘উত্তরকন্যা’র অতিথিনিবাসে উঠবেন। শিলিগুড়ি শহরে একটি সরকারি সভা করার কথা রয়েছে তার।

বিডিপ্রতিদিন/কবিরুল

এই রকম আরও টপিক

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর