শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২৩:৩৯

প্রকৃতি

অতিথি পাখির কোলাহলে মুখরিত সুখসাগর

রিয়াজুল ইসলাম, দিনাজপুর

অতিথি পাখির কোলাহলে মুখরিত সুখসাগর

অতিথি পাখিদের কোলাহলে মুখরিত দিনাজপুরের সুখসাগর। এতে প্রকৃতি প্রেমিকদের আনা-গোনাসহ ভ্রমণ-পিপাসুদের কাছে এর কদর বেড়েছে।

ব্যস্ততম শহরের কোলাহল থেকে মুক্তি পাওয়ার মতো নিরিবিলি পরিবেশে মায়াবী হাতছানি এক অনুপম দৃশ্য সংবলিত দিনাজপুরের সুখসাগর ঠিক যেন সুখ ও শান্তির পরশ। যে কোনো প্রকৃতি প্রেমিকের দৃষ্টি কেড়ে নেয়। সুখসাগরটিকে ঘিরে গড়ে তোলা হয়েছে সুখসাগর ইকোপার্ক। যেখানে জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ তথা পরিবেশ উন্নয়নে পাখির অভয়াশ্রমে পরিণত হয়েছে। হাজার হাজার পাখির কলরবে মুখরিত হয় সুখসাগর। মুগ্ধ করে প্রকৃতি প্রেমিকদের। এর অবস্থান দিনাজপুর শহর থেকে সড়কপথে উত্তর পূর্ব দিকে ২ কিলোমিটার দূরে রাজবাটী এলাকায় অবস্থিত। আর রাজবাটীর পেছনেই এই ঐতিহাসিক ‘সুখসাগর’। জেলা সদর থেকে সড়কপথে এখানে আসা যায়। দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে মানুষ চিত্র বিনোদনের জন্য, পিকনিক বা একটু নিরিবিলিতে সময় কাটাতেও এখানে আসেন। নয়নজুড়ানো এই সুখসাগরে দেশি পর্যটকদের ভিড় লক্ষ্য করা যায় সব সময়ই। প্রতিদিন বিকালে শহরের বিভিন্ন বয়সের মানুষের ভিড়ে মুখরিত হয়ে ওঠে এই এলাকাটি। সুখসাগরে রয়েছে বিভিন্ন গাছ-গাছালি। সুখসাগরের চারপাশে পথে যেতে যেতে চোখে পড়বে বিভিন্ন প্রজাতির গাছ ও উঁচু-নিচু পাহাড়ি পথ। সুখসাগর যেন এক মোহন-মায়াবী স্বপ্নীল ভুবন। সুখসাগরের আয়তন ২২.৪৪ একর। উল্লেখ্য, বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় এক কোটি আটচল্লিশ লাখ বাহান্ন হাজার টাকা ব্যয়ে সুখসাগর ট্যুরিজম ইকোপার্ক নির্মাণ ও আধুনিকায়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করেছে।


আপনার মন্তব্য