শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ২৫ মার্চ, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৫ মার্চ, ২০২০ ০০:১২

অষ্টম কলাম

পেটের ব্যথায় হাসপাতালে রোগীর আত্মহত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক

পেটের ব্যথায় হাসপাতালে রোগীর আত্মহত্যা

পেটের ব্যথা সহ্য করতে না পেরে হানিফ (৩৫) নামে এক রোগী আত্মহত্যা করেছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। রাজধানীর বারডেম হাসপাতাল থেকে তার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। গত সোমবার রাত সাড়ে ৩টার দিকে ৯ম তলার ৯১ নম্বর ওয়ার্ডের পাশের বাথরুমে গলায় ফাঁস দিয়ে তিনি আত্মহত্যা করেন। পুলিশ ও স্বজনরা বলছে, পেটের ব্যথা সহ্য করতে না পেরে তিনি আত্মহত্যা করেন। ময়নাতদন্তের জন্য তার লাশ ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) মর্গে পাঠানো  হয়েছে। নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার থানার বাহেরচরে কাঠমিস্ত্রি হানিফের বাড়ি। স্ত্রী মাসুমা আক্তার ও দুই সন্তানকে নিয়ে তিনি গ্রামে থাকতেন। তার স্ত্রী মাসুমা আক্তার জানান, তাদের বিয়ে হয় ৬ বছর আগে। এরপর থেকেই অসুস্থতায় ভুগছিলেন হানিফ। এ কারণে আস্তে আস্তে কাজও ছেড়ে দেন। তার ডায়াবেটিস, পায়ের আঙ্গুলে ঘা শুরু হয়। পেট জ্বালাপোড়াসহ বিভিন্ন সমস্যা ছিল। বিভিন্ন হাসপাতালে তাকে চিকিৎসা করানো হয়। সর্বশেষ ২০ মার্চ বারডেম হাসপাতালের সার্জারি বিভাগে ভর্তি করানো হয়। সোমবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে তারা দুজন বেডেই ঘুমিয়ে পড়েন। এরপর রাত ৩টার দিকে ঘুম ভেঙে গেলে হানিফকে বেডে দেখতে না পেয়ে ওয়ার্ডে খোঁজাখুঁজি করেন। পরে পাশের বাথরুমে গিয়ে দেখেন দরজা বন্ধ। এরপর স্টাফ নার্সদের ডাকলে তারা দরজার সিটকিনি ভেঙে ভিতরে ঢুকে দেখেন গোসলের ঝরনার সঙ্গে পরনের লুঙ্গি পেঁচিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে সে ঝুলছে। স্বজনদের বরাত দিয়ে রমনা থানার এসআই বিপ্লব সরকার জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে পেটে অসহ্য জ্বালাপোড়া ও বিভিন্ন অসুস্থতার কষ্ট সহ্য করতে না পেরে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন হানিফ। তবে ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যাবে। এদিকে, গতকাল দুপুরে মুগদা থানার বিশ্বরোড মেইন রাস্তার পাশে ট্রাকের চাকায় হাওয়া দেওয়ার সময় তা ব্রাস্ট হয়ে ট্রাকের হেলপার আলামিনের (২০) মৃত্যু হয়েছে।


আপনার মন্তব্য