শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ২৪ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৩ অক্টোবর, ২০২০ ২৩:৩২

অষ্টম কলাম

১৫ বছর পর চালু হলো এমআরআই মেশিন

সামছুজ্জামান শাহীন, খুলনা

রোগীর জটিল পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য চাহিদার ১৫ বছর পর খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চালু হলো এমআরআই (ম্যাগনেটিক রেসোন্যান্স ইমেজিং) সুবিধা। হাসপাতালে রেডিওলজি বিভাগে অত্যাধুনিক এ মেশিন স্থাপন করা হয়েছে। চিকিৎসকরা জানান, আজ (শনিবার) থেকে সরকারি হাসপাতালে স্বল্পমূল্যে গরিব রোগীদের পরীক্ষা-নিরীক্ষা সম্ভব হবে। সেই সঙ্গে ভোগান্তিও কমবে।

জানা যায়, খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে প্রতিদিন কয়েক হাজার রোগীর চিকিৎসা দেওয়া হয়। তবে অধিকাংশ ক্ষেত্রে জটিল রোগ নির্ণয়ের জন্য বেসরকারি হাসপাতাল, ডায়াগনস্টিক সেন্টার থেকে উচ্চমূল্যে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করানো হয়। এর মধ্যে এমআরআই অত্যন্ত ব্যয়বহুল প্রয়োজনীয় পরীক্ষা। হাসপাতালের রেডিওলজি বিভাগের ইনচার্জ এস এম আলতাফ হোসেন বলেন, এত দিন এমআরআই সুবিধা না থাকায় ভোগান্তির মুখে পড়ত রোগীরা। বাইরে থেকে যেখানে এমআরআই করাতে ৬,৬০০-১০,০০০ টাকা লাগে এখন সরকারি হাসপাতালে ৩,০০০ টাকা লাগবে। ২০০৫ সালে প্রথমবার অত্যাধুনিক এ মেশিন স্থাপনের জন্য মন্ত্রণালয়ে চাহিদাপত্র দেওয়া হয়। দীর্ঘদিন পর চলতি বছরের মার্চে এমআরআই মেশিনের যন্ত্রাংশ হাসপাতালে পৌঁছে। অবকাঠামো সংস্কারের পর মেশিনটি রেডিওলজি বিভাগে স্থাপন করা হয়েছে। খুমেক হাসপাতালের সাবেক পরিচালক ডা. এ টি এম মঞ্জুর মোর্শেদ বলেন, এমআরআই পরীক্ষায় অভ্যন্তরীণ সূক্ষ্মাতিসূক্ষ্ম চিত্র পাওয়া যায় এবং রোগ নির্ণয় সহজ হয়। রোগীর মস্তিষ্ক, মেরুদন্ড, জয়েন্ট (হাঁটু, কাঁধ, গোড়ালি), রক্তনালি, হার্ট ও শরীরের অন্যান্য অংশের পরীক্ষায় এমআরআই ব্যবহার করা হয়। এর মাধ্যমে মস্তিষ্কের রোগ, টিউমার, স্ট্রোক, মেরুদন্ডের আঘাত, মাংসপেশির সমস্যা, রক্তনালির অস্বাভাবিকতা, প্রস্টেট সমস্যা নির্ণয় করা যায়। তিনি বলেন, দীর্ঘদিনের প্রচেষ্টায় মেশিনটি পাওয়া গেছে। খুমেক হাসপাতালের বর্তমান পরিচালক ডা. মুন্সি রেজা সেকেন্দার জানান, এমআরআই মেশিন চালু হওয়ায় হাসপাতালে সেবার মানে আরও একধাপ অগ্রগতি হয়েছে। এখন থেকে স্বল্প খরচে সরকারি হাসপাতালে রোগীরা এমআরআই সুবিধা পাবেন।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর