শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ১৭ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৭ জুলাই, ২০২১ ০০:০০

হিমায়িত চিংড়ি রপ্তানিতে স্বস্তি

৩৫০ কোটি টাকার চিংড়ি যাচ্ছে ইউরোপের বাজারে

নিজস্ব প্রতিবেদক, খুলনা

হিমায়িত চিংড়ি রপ্তানিতে স্বস্তি
Google News

রপ্তানিকারকদের সংগঠন বাংলাদেশ ফ্রোজেন ফুড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন ও শিপিং কোম্পানির দেনদরবারে প্রায় দুই সপ্তাহ পরে হিমায়িত কনটেইনারের সংকট মিটেছে। মার্কস লাইন শিপিং এবং ওয়ান শিপিংয়ের কনটেইনারে মোংলা বন্দর দিয়ে ১৮-১৯ জুলাই ও ১৯-২০ জুলাই ২৫০ কনটেইনার চিংড়ি নেওয়া হচ্ছে সিঙ্গাপুরে। সিল্যান্ড শিপিং ও পিআইএল শিপিং ফিডার ভেসেলে (ছোট জাহাজ) ওই কনটেইনার সিঙ্গাপুর বন্দরে পৌঁছার পর সেখান থেকে মাদার ভেসেলে ইউরোপের দেশগুলোতে পাঠানো হবে। জানা যায়, রপ্তানির জন্য প্রক্রিয়াজাত এই চিংড়ির বাজার মূল্য প্রায় ৩৫০ কোটি টাকা। বাংলাদেশ ফ্রোজেন ফুড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশেনের সহ-সভাপতি এস হুমায়ুন কবির জানান, ২০ জুনের পর থেকে বন্দরে হিমায়িত কনটেইনারের সংকট দেখা দিয়েছিল। কনটেইনারের অভাবে খুলনা ও চট্টগ্রাম জোনের ৬০টি কোম্পানিতে প্রায় ৫৫০ কোটি টাকার ৮ হাজার মেট্রিক টন প্রক্রিয়াজাত চিংড়ি আটকে যায়। পরে শিপিং কোম্পানির সঙ্গে দেনদরবারে তারা ঈদের আগে ২৫০ কনটেইনারে প্রায় ৫ হাজার মেট্রিক টন চিংড়ি রপ্তানিতে রাজি হয়। এতে আটকে থাকা চিংড়ির ৭০-৭৫ ভাগ রপ্তানি করা সম্ভব হবে।

রপ্তানিকারক ক্রিমসন রোজেলা সি ফুডের পরিচালক মো. জালাল  উদ্দিন জানান, আপাতত সংকটের সমাধান হওয়ায় ১৮-১৯ জুলাই পাঁচটি কন্টেইনারে তার সাড়ে ৭ কোটি টাকার চিংড়ি ইউরোপের বাজারে যাচ্ছে। তিনি বলেন, সময় মতো চিংড়ি রপ্তানি করতে না পারলে বিদেশি ক্রেতাদের ‘ক্রয় চুক্তি’ বাতিলের আশঙ্কা থাকে। তিনি বলেন, গত বছরে যেসব কন্টেইনার ২০০০-২৫০০ ডলারে ভাড়া পাওয়া যেত, বর্তমানে সেই ভাড়া কয়েক গুণ বেড়েছে। এতে রপ্তানিকারকরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন।

জানা যায়, কভিডের ধাক্কা কাটিয়ে চীন বর্তমানে তাদের রপ্তানি বহুগুণ বাড়িয়েছে। কন্টেইনারের চাহিদা থাকায় শিপিং কোম্পানি চীনমুখী হয়েছে। এতে দেশে কন্টেইনারের সংকট সৃষ্টি হয়। গত ১১ জুলাই বাংলাদেশ প্রতিদিনে এ-সংক্রান্ত সংবাদ প্রকাশের পর ফ্রোজেন ফুড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশেন ও শিপিং কোম্পানির সঙ্গে কয়েক দফা বৈঠক হয়। পরে দুই শিপিং কোম্পানি ঈদের আগে দুটি ফিডার ভেসেলে চিংড়ি রপ্তানিতে রাজি হয়।